মুফতি সাখাওয়াত হোসাইন রাযি আজ এক বিবৃতিতে বলেছেন- নির্বাচন কমিশনের (ইসি) মাহফিল বন্ধ করার ঘোষণা দেয়ার এখতিয়ার নেই। বাংলাদেশের সংবিধানে সকল নাগরিককে ধর্ম অবলম্বন, পালন বা প্রচারের অধিকার দেয়া হয়েছে, নির্বাচন কমিশন সে অধিকার কেড়ে নিতে পারে না।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনের কাজ হচ্ছে সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজন করা এবং নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘিত হলে কেবল দায়ী ব্যাক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারে। ওয়াজ মাহফিলের মাধ্যমে কোন ভাবেই নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘিত হয়না। যদি মনে করা হয় যে, ওয়াজ মাহফিলে গিয়ে প্রার্থীরা ভোট প্রার্থনা করবে, তাহলে ইসি কেবল এই নির্দেশনা জারি করতে পারে যে, কোনো মাহফিলে গিয়ে প্রার্থীরা ভোট চাইতে পারবে না। তা না করে মাহফিল বন্ধ করে দেয়া হঠকারী সিদ্ধান্ত ছাড়া আর কিছুই হতে পারে না।

নির্বাচন আসলে দেখা যায় প্রার্থীরা মসজিদে মসজিদে গিয়ে নামাজের আগে ও পরে মুসল্লিদের কাছে ভোট প্রার্থনা করে থাকেন। তাহলে কি এই নির্বাচন কমিশন মসজিদ তালাবদ্ধ করে দেয়ার ঘোষণা দিবেন?

তিনি আরো বলেন, অবাক করা বিষয় হচ্ছে- গান বাধ্য খেলাধুলা অনুষ্ঠান সবই চালু আছে, শুধু বন্ধ করতে বলা হয়েছে ওয়াজ মাহফিল আয়োজন করাকে। নির্বাচন কমিশনের মনে রাখা উচিত ছিল যে, শীত মৌসুমে এ দেশে প্রচুর পরিমাণ ওয়াজ মাহফিল আয়োজিত হয়। যার মাধ্যমে দেশের মানুষ দ্বীন সম্পর্কে নানা বিষয়ে জানতে পারে।
এছাড়া অধিকাংশ মাহফিল আয়োজন করে থাকে ইসলামী অরাজনৈতিক সংগঠন ও মাদ্রাসাগুলো। মূলত এক বৎসর আগে থেকেই শুরু হয় প্রস্তুতি। যদি এ পর্যায়ে এসে এই মাহফিলগুলো অনুষ্ঠান না করা যায়, তাহলে সংগঠন ও মাদ্রাসাগুলো ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখিন হবে সামাজিক ও আর্থিকভাবে।

তাই আমাদের জোর দাবি হচ্ছে- নির্বাচন কমিশন যেন অনতিবিলম্বে ওয়াজ মাহফিলের উপর আরোপিত বিধিনিষেধ তুলে নেয়।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here