আল্লামা নুরুল হুদা রহ. ছিলেন দেশের খ্যাতিমান একজন আলেমেদ্বীন। সফল শিক্ষাবিদ ও ওলামায়ে দেওবন্দের নমুনা। নোয়াখালী জেলায় অবস্থিত চৌমুহনী ইসলামিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসার ৫৭ বছরের সফল পরিচালক। আলিয়া মাদ্রাসার পাঠ্যসূচিতে সরকার ব্যাপক পরিবর্তন করলে যে প্রতিষ্ঠানটিকে তিনি ১৯৭৬ সালে সরকারের নিয়ন্ত্রণ থেকে বের করে কওমীতে রূপান্তর করেছিলেন। এমন দৃষ্টান্ত আজ বড়ই বিরল।

মাওলানা হোসাইন আহমদ মাদানী রহ. এর এই শিষ্য আশির দশকে হযরত হাফেজ্জী হুযূর রহ. তাওবার ডাক দিলে রাজনীতির ময়দানে নেমে এসেছিলেন। পরামর্শ ও শ্রম দিয়ে ভূমিকা রেখেছিলেন খেলাফত প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে। তাই একজন দূরদর্শী রাজনীতিবিদ হিসেবেও সুখ্যাতি রয়েছে তাঁর। প্রচারবিমুখ ও দুনিয়াবিমুখ আল্লামা নুরুল হুদা পরবর্তীতে শাইখুল হাদিস আল্লামা আজিজুল হক রহ. ও আল্লামা মুফতী ফজলুল হক আমিনী রহ. এর সঙ্গেও কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে খেলাফত প্রতিষ্ঠার আন্দোলন অব্যাহত রেখেছিলেন।

১৯২৯ খ্রিস্টাব্দের কোন একদিনে লক্ষ্মীপুর জেলার চরশাহী ইউনিয়নের রামপুর গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত ও দ্বীনী পরিবারে জন্ম গ্রহণ করা শিশুটিই আল্লামা নুরুল হুদা। তাঁর লেখাপড়ার হাতেখড়ি পরিবারের সদস্যদের হাতে হলেও পর্যাক্রমে ফিকহ ও হাদীস শাস্ত্রে বুৎপত্তি অর্জন করেন। অতপর বিখ্যাত দ্বীনি বিদ্যাপীঠ দারুল উলূম দেওবন্দে গিয়ে প্রথমে মৌলিক কিতাবগুলো অধ্যয়ন ও ‘কুতুবে সিহাহ সিত্তা’ হাদীসের গ্রহণযোগ্য প্রসিদ্ধ ছয় কিতাব পাঠ করে ইলম অর্জনে নিজেকে নিয়ে যান অনন্য উচ্চতায়। আরবী, উর্দু, ফার্সী এমনকি বাংলা ভাষায়ও যথেষ্ট পান্ডিত্য অর্জন করেছিলেন তিনি।

অধ্যয়ন শেষে অধ্যাপনাকেই পেশা ও নেশা হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন তিনি। একজন আদর্শ শিক্ষকের যতগুলো গুণ থাকা দরকার যেন তার সবগুলোই বিদ্যমান ছিল মরহুমের জীবনে। তার অমায়িক ব্যবহার ও চারিত্রিক মাধুর্যতা শিক্ষকতা পেশাকে দিয়েছিল নতুন আবরণ। এক কথায় বলতে গেলে তিনি ছিলেন এক উদ্ভাসিত নূর।

মানুষ মাত্রই মরণশীল। তাই এই মহামনীষীও একদিন আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন দয়াময় প্রভুর সান্নিধ্যে। ১০ ডিসেম্বর’১৩ বেলা ১১টায় বিদায় নিলেন নশ্বর এই পৃথিবী থেকে। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাযিউন! আল্লাহ তা’আলা তাঁর কবরকে নূর দ্বারা পরিপূর্ণ করে দিন, আমিন!

 

-(আল্লামা নুরুল হুদা রহ.জিবনী ও স্মারকগ্রন্থে মুফতী সাখাওয়াত হুসাইন রাজী লিখিত কলাম থেকে। স্বারকগ্রন্থটি অচিরেই প্রকাশিত হবে ইনশায়াল্লাহ!)

 

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here