হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের সঙ্গে জামায়াতের সম্পৃক্ততা ও সংশ্লিষ্টতা প্রমাণে আবারো অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে চিহ্নিত মিডিয়া এবং প্রোপাগান্ডা ও অপপ্রচারের পাশাপাশি হেফাজতের কোন ধরনের কোন কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত নয় এমন একজনকে দাঁড় করিয়ে দিচ্ছে গোটা হেফাজতে ইসলামের বিরুদ্ধে।
অবশ্য বহিরাগত কোন অবোধকে নিয়ে এসে হেফাজতে ইসলামের বিরুদ্ধে দাঁড় করানোয় এটাই প্রমাণিত হয় যে, প্রকৃতপক্ষেই হেফাজতে ইসলামে কোন বিভাজন বা বিভক্তি নেই। বিচ্ছিন্নভাবে কারো কোন বিষয়ে দ্বিমত থাকলেও সেটাকে হেফাজতের মধ্যে বিভেদ বা গ্রুপিং বলে চালিয়ে দেওয়া নিঃসন্দেহে ষড়যন্ত্রের অংশ।
যখন থেকে হেফাজতে ইসলামের উত্থান তখন থেকেই দলটির যৌক্তিক আন্দোলন বাধাগ্রস্ত করতে অপশক্তি ঘৃণ্য ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়। এমনকি হেফাজতে ইসলামকে হেফাজতে জামায়াতে ইসলাম বলতেও দ্বিধা করেনি তারা।
হেফাজতে ইসলাম তার অবস্থান বারবার স্পষ্ট করার পরেও “শাইখুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহমদ শফী রহ. যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে আন্দোলনে নেমেছেন, এ আন্দোলন থেকে জামায়াতে ইসলামী ফায়দা নেবে, এ আন্দোলনে জামায়াত প্রবেশ করে তাদের স্বার্থ উদ্ধার করবে” এই ধরনের প্রলাপ শুনতে হয়েছে বহুবার।
মুলত যখনই তারা হেফাজতে ইসলামকে সম্ভাবনাময় মনে করে তখনই অপতৎপরতা বাড়িয়ে দেয়। তাই সংগঠনটির নেতাকর্মী ও সমর্থকদের শঙ্কিত হবার কিছুই নেই। ঐক্যবদ্ধ থেকে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে সমস্ত ষড়যন্ত্রের দাঁতভাঙ্গা জবাব দিতে হবে।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here