জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ-এর মহাসচিব আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী বলেছেন, সরকারের নতজানু পররাষ্ট্রনীতির কারণেই সীমান্তে বাংলাদেশী হত্যার দুঃসাহস দেখাতে পারছে বিএসএফ।

গতকাল এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, গত দুই সপ্তাহে বিএসএফ ১০ বাংলাদেশীকে খুন করেছে। সরকারি হিসাবেই গত এক বছরে বিএসএফের বাংলাদেশী খুনের ঘটনা বেড়েছে ১২গুণ। কিন্তু সরকার এসব সীমান্ত হত্যাকাণ্ডের বিরুদ্ধে কার্যকর পদক্ষেপ তো দূরের কথা, মৌখিকভাবে কড়া প্রতিবাদও জানাতে দেখা যাচ্ছে না। সরকারের এমন নতজানু ভূমিকা গভীর বেদনাদায়ক, লজ্জার ও নিন্দনীয়।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ সীমান্তে বিএসএফ যে হারে নির্বিঘ্নে খুন করে চলেছে, বিশ্বে এমন ঘটনা নজিরবিহীন। বন্ধুপ্রতিম প্রতিবেশী দেশ হিসেবে ভারতের সাথে সমমর্যাদা ও সম-অধিকারের ভিত্তিতে সুসম্পর্ক থাকাটাই কাম্য। কিন্তু সীমান্তে বাংলাদেশীদের লাগাতার খুন করে যাবে, আর বাংলাদেশ সুসম্পর্ক রক্ষার জন্য চুপচাপ সয়ে যাবেন এমন ঘটনা আমরা চেয়ে চেয়ে দেখব না। কোনো আগ্রাসী তৎপরতার কঠিন প্রতিরোধে জনগণ রাস্তায় নেমে আসতে দ্বিধা করবে না।

তিনি বলেন, বিএসএফের যেকোনো আগ্রাসী তৎপরতার জবাবে অতীতে বাংলাদেশের সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর বীরত্বপূর্ণ ভূমিকা জনগণ দেখে এসেছে। অথচ বর্তমান সরকারের লাগাতার তিন মেয়াদে সীমান্ত রক্ষী বাহিনীকে কার্যত নিষ্ক্রিয় রাখা হয়েছে। সীমান্ত হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় বর্ডার গার্ডের তরফ থেকে পতাকা বৈঠক করে লাশ গ্রহণ ছাড়া ভরসা রাখার মতো কোনো তৎপরতাই এখন চোখে পড়ে না।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here