মুফতি রিজওয়ান রফিকী !!

প্রিয় পাঠক! বাংলাদেশে যে সমস্ত সংগঠন ইসলামের মূল আকীদা থেকে দূরে সরে নব্য মতবাদ প্রতিষ্ঠা করেছে তাদের অন্যতম সংগঠন হলো হেযবুত তওহীদ। যার প্রতিষ্ঠাতা হলেন টাঙ্গাইল জেলার করটিয়ার পন্নী পরিবারের সন্তান জনাব মোহাম্মাদ বায়জীদ খান পন্নী। জন্ম ১১ মার্চ ১৯২৫ ইং।

পন্নী পরিবারটি টাঙ্গাইলের ঐতিহাসিক জমিদার পরিবার। বায়জীদ খান পন্নী একজন সাবেক সেক্যুলার রাজনীতিবিদ, একজন রায়ফেল হাতে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন বন্য পশু শিকারী, তার রচিত বইয়ের অন্যতম ‘বাঘ-বন-বন্দুক’। সব ছাপিয়ে তার বড় পরিচয় একজন হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক হিসেবে।

তিনি রাজনিতি এবং ব্যবসা বাণিজ্যে চরমভাবে বিপর্যস্ত হয়ে জীবনের শেষ লগ্নে এসে ইসলামের মৌলিক আকীদা বিবর্জিত হয়ে হেজবুত তওহীদ নামে একটি দল গঠন করেন এবং ‘মোজেজার’ মাধ্যমে আল্লাহ তাকে বিশ্ব মুসলিমের ‘ইমামতি’ দিয়েছেন বলে দাবী করেন।

তার বক্তব্য হল, ইসলাম ধর্ম নাকি সমূলে বিকৃত হয়ে গিয়েছে। শুধু তাই নয় এই ধর্ম বিগত তেরশো বছর ধরে বিকৃত। বিশ্বের ‘ইসলামবিহীন’ ১৬০ কোটি ‘নামের-মুসলিম’ তার ইমামতি স্বীকৃতির মাধ্যমে আবার হেদায়াতে ফিরে আসতে পারে। তার দরজা দিয়েই এখন মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহিস সালামের ধর্মে ঢুকতে হবে। কেননা তিনি আল্লাহ মনোনীত ‘এমাম’।

নামাযের মত একটি গুরুত্ববহ আমলকে সেনাবাহিনীর ট্রেনিংয়ের মত করে হাস্যকর পরিবেশ তৈরি করেছেন মুসলিম জনসাধারণের মাঝেও। শুধু তাই নয়। তার মতবাদ এত জঘণ্য যা অনেক ক্ষেত্রে কাদিয়ানীদেরকেও হার মানিয়েছে। অবশেষে ১২ জানুয়ারী ২০১২ সালে তিনি ইন্তেকাল করেন। ফলে তারই দায়িত্ব তার মেয়ে জামাতা হুসাইন সেলিম সংগঠনটির হাল ধরেন।

চলুন আমরা অতি সংক্ষেপে তাদের কিছু ভ্রান্ত মতবাদ পাঠক সমীপে তুলে ধরি-

আকীদা-১
বর্তমানের বিশ্বব্যাপী সমস্ত মুসলমান কাফের এবং মুশরিক হয়ে গেছে। এ ব্যাপারে তাদের বই ‘আল্লাহর মোজেজা হেযবুত তওহীদের বিজয় ঘোষণা’ বইয়ের ২৩ নাম্বার পৃষ্ঠায় লিখেছেÑ
‘আল্লাহর সর্বব্যাপী সার্বভৌমত্ব অর্থাৎ তাওহীদ থেকে বিচ্যুত হয়ে পুরো মানবজাতী কার্যত কাফের এবং মোশরেকে পরিণত হয়েছে।’

অথচ দুনিয়ার সব মুসলিমকে কাফের,মুশরিক বলা জঘন্য অপরাধ। যারা এমন জঘণ্য উক্তি করে হযরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাদের ব্যাপারে বলেছেন-
عن ابي هريرة ان رسول الله صلي الله عليه وسلم قال اذا قال الرجل هلك الناس فهو اهلكهم
বঙ্গানুবাদ হযরত আবু হুরায়রা রা. থেকে বর্ণিত রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, যে বলবে সমস্ত মানুষ ধ্বংস (অর্থাৎ বেঈমান) হয়ে গেছে সে লোকটিই সবচে ধ্বংসপ্রাপ্ত। অথবা সে তার অনুসারিদের ধ্বংস করে ছাড়বে। Ñসহীহ মুসলিম- হাদিস নং-২৬২৩ আবু দাউদ.হাদিস নং-৪৯৮৩

আলিমুল গায়েব মহান আল্লাহ জানতেন যেÑ এমন কিছু লোক আবিস্কার হবে যারা এ ধরণের কথা বলবে। সেজন্য শেষ নবী মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে দিয়ে ভবিষ্যদ্বানী করিয়েছেন।
সুৎরাং বিশ্বনবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের এই হাদিসই প্রমাণ করে যে হেযবুত তওহীদের প্রতিষ্ঠাতা বায়াজীদ খান পন্নী যামানার সবচেয়ে বড় পথভ্রষ্ট, গোমরাহ এবং তাকে যারা অনুসরণ করবে সে তাদেরকে ধ্বংস করেই ছাড়বে। বাস্তবতাও তাই দেখা যাচ্ছে।

চলবে……….

 

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here