ছবি সংগৃহীত

খেলাফত মজলিসের আমির মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক বলেছেন, জনগণের জানমাল ইজ্জতের কোনো নিরাপত্তা নেই। দেশে গুম, খুন, হত্যা, নির্যাতন মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। রাজনৈতিক সঙ্কট ক্রমেই ঘনীভূত হচ্ছে। বিরোধী রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের ওপর হামলা, মামলা, গ্রেফতার, জুলুম নির্যাতন চলছেই। জনবিচ্ছিন্ন সরকার মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার কেঁড়ে নিচ্ছে। দেশ এক ভয়াবহ অনিশ্চয়তার দিকে চলে যাচ্ছে।

এ অবস্থা থেকে উত্তরণের একমাত্র পথ হচ্ছে একটি অবাধ ও সুষ্ঠু জাতীয় নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতার পরিবর্তন। কিন্তু বর্তমান সরকারের অধীনে কোনোভাবেই অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠান সম্ভব নয়। তারা বলেন, একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের জন্য বর্তমান জাতীয় সংসদ ভেঙে দিয়ে নির্বাচনকালীন নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার গঠন করতে হবে। নির্বাচনের সময় বিচারিক ক্ষমতা দিয়ে সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে হবে। সকল মিথ্যা ও গায়েবি মামলা প্রত্যাহার করে রাজবন্দীদের মুক্তি দিতে হবে। নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারের সিদ্ধান্ত বাতিল করতে হবে। গণমাধ্যমের স্বাধীনতাবিরোধী ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সংশোধন করতে হবে।

গতকাল সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের বৈঠকে সভাপতির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন। মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদেরের পরিচালনায় বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের নায়েবে আমির মাওলানা সৈয়দ মজিবর রহমান, মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইন, যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মুহাম্মদ শফিক উদ্দিন, অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসাইন, শেখ গোলাম আসগর, মুহাম্মদ মুনতাসির আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক ড. মোস্তাফিজুর রহমান ফয়সল, মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ শফিউল আলম, মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, মাওলানা এ কে এম আইউব আলী, প্রশিক্ষণ সম্পাদক- অধ্যাপক আবদুল হালিম, দফতর ও প্রচার সম্পাদকÑ অধ্যাপক মো: আবদুল জলিল, প্রকাশনা সম্পাদক অধ্যাপক কে এম আলম প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here