ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া একটি বক্তব্যে ভুল বোঝাবুঝি সৃষ্টি হওয়ায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো.আব্দুল্লাহ। কিছুদিন আগে দেয়া ওই বক্তব্যে কাউকে হেয় করা তার উদ্দেশ্য ছিল না বলে জানান তিনি।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মো. আব্দুল্লাহ বর্তমানে লন্ডনে অবস্থান করছেন। ভাইরাল হওয়া ভিডিও’র বিষয়টি তার নজরে আসার পর ওই ভিডিও’র ব্যাপারে দুঃখ প্রকাশ করে বিবৃতি দেন তিনি।

বিবৃতিতে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ বলেন, ‘এ বছর আমরা ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্বপ্রথম দেশের সকল ধারার শীর্ষস্থানীয় ৫৮ জন হাক্কানী ওলামায়ে কেরামের সমন্বয়ে হজ ওলামা মাশায়েখ টিম গঠন করে পবিত্র হজে প্রেরণ করি। আমরা অত্যন্ত আন্তরিকতা এবং সম্মানের সঙ্গে তাদের জন্য পবিত্র মক্কা, মিনা, আরাফা এবং মদিনা শরিফে আবাসন, পরিবহন, খাবারসহ হজের বিধি-বিধান পালনে যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করি।’

‘ওলামায়ে কেরামগণ পবিত্র হজের মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরুর পূর্বে পবিত্র মক্কা শরীফে ছোট ছোট দলে ভাগ হয়ে বাংলাদেশি হাজি সাহেবদের আবাসস্থলে গিয়ে সঠিকভাবে হজপালনে হজের বিধি-বিধানের উপর আলোচনা করেন। একইভাবে মিনা এবং আরফাতে অবস্থানকালে বিভিন্ন তাবুতে গিয়ে তারা বাংলাদেশি হাজি সাহেবদের পবিত্র হজের ইবাদতের বিষয়ে বয়ান করেন। বাংলাদশের সম্মানিত হাজিসাহেবগণ, ওলামায়ে কেরাম ও দেশ-বিদেশের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার বাংলাদেশি নাগরিকগণ সরকারের এ উদ্যোগের ভূয়সী প্রশংসা করেন।’

‘সম্প্রতি দেশের ওলামা-মাশায়েখদের এক আলোচনা সভায় দেশের হাক্কানী ওলামায়ে কেরামের হজে প্রেরণের ব্যবস্থাপনা নিয়ে আলোচনা করতে গিয়ে আমি স্বাধীনতা বিরোধী জামাত-শিবির চক্রের প্রতি ইঙ্গিত করে বক্তব্য প্রদান করি।

আলিয়া মাদ্রাসা কিংবা আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের কোনো আলেমকে হেয় করে বক্তব্য প্রদান আমার উদ্দেশ্য ছিল না। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সকল ধারার হাক্কানী ওলামায়ে কেরামের প্রতি আমার সর্বোচ্চ শ্রদ্ধা ও সম্মান রয়েছে। তারপরও আমার বক্তব্যে কেউ আঘাত পেয়ে থাকলে অনিচ্ছাকৃত ভুলের জন্য আমি দুঃখ প্রকাশ করছি।’

দুদিন আগে ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর ডিভিওটি ভাইরাল হয়। তারপর থেকে কিছু অনলাইন অ্যক্টিভিস্ট সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন অপপ্রচার চালাচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে ধুম্রজাল সৃষ্টি হওয়ায় দুঃখ প্রকাশ করেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো.আব্দুল্লাহ।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here