ছবি সংগৃহীত

সরকার ও নির্বাচন কমিশন (ইসি) মিলে নির্বাচন বানচালের চেষ্টা করছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র ও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, এমতাবস্থায় সিদ্ধান্ত এখন জনগণের হাতে।

মঙ্গলবার বেলা ১২টায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে ইসির সঙ্গে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতাদের বৈঠক শেষে বেরিয়ে এসে ফ্রন্টের মুখপাত্র মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, সারাদেশে ধানের শীষের প্রার্থীদের ওপর হামলা চালানো হচ্ছে। প্রচারে বাধা দেয়া হচ্ছে।গ্রেফতার, মামলা চলছেই। পোস্টার লাগাতে দেয়া হচ্ছেন। কোথাও কোথাও পুলিশের উপস্থিতিতে হামলা করা হচ্ছে। প্রশাসনকে জানিয়েও কোনো প্রতিকার পাওয়া যাচ্ছে। গতকালও ২৮টি স্থানে হামলা হয়েছে।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, “নির্বাচনী প্রচারণা দেখে মনেই হয় না যে কোন প্রতিদ্বন্দ্বী আছে। এ ধরণের হামলা, গ্রেফতার যদি চলতেই থাকে তাহলে ভোটাররা ভোট দিতে যাবে কিভাবে? ”

তিনি আরো বলেন, এসব বিষয় নির্বাচন কমিশনকে জানানো হয়েছে। এখন দেখি তারা কি ব্যবস্থা নেয়।

নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ নেই দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার ও এই ইসি মিলে নির্বাচন বানচালের চেষ্টা করছে।

এর আগে দুপুর ১২ টায় নির্বাচনের সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে সিইসির সঙ্গে বৈঠকে বসেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ শীর্ষ ১০ নেতা।

বৈঠকে ড. কামালসহ আরও ছিলেন- বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. মঈন খান, মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু, ডা. জাফরুল্লাহ প্রমুখ।

এছাড়া প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদাসহ অন্যান্য কমিশনাররা উপস্থিত ছিলেন।

 

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here