আহমদ শফীর আহবান

টঙ্গীতে বিশ্ব ইজতেমার প্রস্তুতি জোড়কে কেন্দ্র করে বিতর্কিত আলেম মাওলানা সা’দ কান্ধলবীর অনুসারী সন্ত্রাসীদের বর্বরোচিত হামলায় আহত আলেম-উলামা, মাদরাসা ছাত্র ও তাবলীগী সাথীদের সেবায় এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমীর ও দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসার পরিচালক আল্লামা শাহ আহমদ শফী।

মঙ্গলবার (৪ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা ৭টায় আল্লামা আহমদ শফী’র কার্যালয় থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ আহবান জানানো হয়।

এতে আল্লামা শফী বলেন, নবী-রাসুলদের উত্তরাধিকারী দ্বীনী ইলম চর্চা ও প্রচারকারী আলেম সমাজ ও ছাত্রদের রক্ত বৃথা যাবে না। মানুষকে মাওলানা সা’আদের ফেতনা থেকে বাঁচানোর জন্য আলেম-উলামা, মুফতী-মুহাদ্দিস ও মাদরাসার ছাত্ররা ধৈর্য, ত্যাগ ও রক্তের যে নজরানা পেশ করেছেন তা বেনজির। ইনশাআল্লাহ এর মাধ্যমে উম্মাহর হেদায়াতের পথ সুগম হবে।

আল্লামা আহমদ শফী বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহতদের পাশে দাঁড়াতে এবং প্রত্যেক মসজিদে দোয়ার কর্মসূচি পালনের জন্য সর্বস্তরের আলেম উলামা, তাবলীগী সাথী ও ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের প্রতি আহবান জানান।

আল্লামা শফী হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়ে বলেন, গত শনিবার (১ডিসেম্বর) সকাল থেকে মাওলানা সা’আদের অনুসারীরা টঙ্গীর মাঠ দখল করার জন্য মাঠে অবস্থানরত জোড়ের ইন্তিজামে কর্মরত নিরীহ নিরস্ত্র আলেম-উলামা, মাদরাসা ছাত্র ও তাবলীগী সাথীদের উপর লাঠি-সোটা ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা করে পাঁচ শতাধিক সাথীদের মারাত্মকভাবে আহত করেছে। যারা বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। আমি মনে করি এটি সম্পূর্ণ পূর্বপরিকল্পিত এবং শান্তিপূর্ণভাবে বিশ্বব্যাপী দাওয়াতের কাজকে বন্ধ এবং মুসলমানদের মাঝে বিভেদ-বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য এ হামলা চালানো হয়েছে।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here