মামুনুল হক বলেছেন,গত ১ ডিসেম্বর টঙ্গী ময়দানে নিরীহ মাদরাসা ছাত্র ও তাবলীগ জামাতের সাথীদের উপর ওয়াসিফ, নাসিম গং যে বর্বরোচিত হামলা চালিয়েছে-এতে প্রত্যক্ষ সহযোগিতা করেছেন মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ।

জামিয়া রাহমানিয়া ঢাকার শাইখুল হাদিস মাওলানা মামুনুল হক বলেছেন,গত ১ ডিসেম্বর টঙ্গী ময়দানে নিরীহ মাদরাসা ছাত্র ও তাবলীগ জামাতের সাথীদের উপর ওয়াসিফ, নাসিম গং যে বর্বরোচিত হামলা চালিয়েছে-এতে প্রত্যক্ষ সহযোগিতা করেছেন মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ।

তিনি বলেন, মাওলানা মাসউদের প্রতিষ্ঠান জামিয়া ইকরায় ওয়াসিফ, নাসিম গংদের আশ্রয় প্রশ্রয় দিয়ে, ব্রিফিং করে এবং সারারাত প্রশিক্ষণ প্রদান শেষে সকালে ছাত্রদের উপর হামলা করার জন্য তাদের প্রেরণ করা হয় ইজতেমা ময়দানে।

গতকাল রবিবার (২ ডিসেম্বর) দুপুরে বাইতুল মোকাররমের দক্ষিণ গেটে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

মাওলানা মামুনুল হক আরো বলেন, শুক্রবার ছুটির দিন হওয়াতে তাবলীগ জামাতের প্রতি অনুরাগী ছাত্ররা জানুয়ারিতে অনুষ্ঠেয় বিশ্ব ইজতেমার প্রস্তুতির জন্য স্বেচ্ছাসেবা দানের লক্ষ্যে শুক্রবার এবং শনিবার ইজতেমা ময়দানে জমায়েত হয়। কিন্তু শনিবার সকালে ওয়াসিফ,নাসিম গং সেখানে আসতে শুরু করে, সেসময় প্রশাসন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব নিলেও বেলা এগারো টায় যখন ছাত্রদের উপর ওয়াসিফ বাহিনীর সন্ত্রাসীরা হামলা করে, তখন প্রশাসন নীরব দর্শকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয় এবং প্রশাসনের সহযোগিতায় সন্ত্রাসী বাহিনী গেটগুলো ভেঙে ময়দানের ভিতরে প্রবেশ করে দেশীয় বিভিন্নরকম অস্ত্র,লাঠিসোঁটা, রড ইত্যাদি নিয়ে সরলমনা ও নিরস্ত্র ছাত্র ও একনিষ্ঠ সাথীদের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে।

মাওলানা মামুনুল হক বলেন, এই পরিস্থিতিতে আমরা বলতে বাধ্য হচ্ছি যে, প্রশাসন আমাদের নিরীহ তাবলিগী সাথী ও ছাত্রদেরকে খুনিদের হাতে তুলে দিয়েছে। গতকালের হামলায় অনেকে গুরুতর আহত হয়েছেন, অনেকের প্রাণ গিয়েছে। এই হত্যাকাণ্ডের দায়দায়িত্ব প্রশাসনের বহন করতে হবে।

তিনি বলেন, আমরা আজ বিক্ষুব্ধ হয়ে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানাতে রাজপথে নেমে আসতে বাধ্য হয়েছি। সুতরাং পরিষ্কার ভাষায় বলতে চাই, জানুয়ারিতে অনুষ্ঠেয় ইজতেমা যদি ওয়াসিফ, নাসিম গংদের ষড়যন্ত্রে মাওলানা মাসউদের নেতৃত্বে অব্যাহতভাবে চলতে থাকে তাহলে আমরা আর প্রশাসনকে মানবো না।

তিনি বলেন, তাদের ষড়যন্ত্র যেটা ছিলো,আগামী ইজতেমা বানচাল করা। আমরা দেখতে পাচ্ছি প্রশাসন তাদের এ ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন করতে ধীরেধীরে সামনে অগ্রসর হচ্ছে। যদি এভাবেই ষড়যন্ত্র এগিয়ে যেতে থাকে এবং খুনিদের যদি গ্রেপ্তার না করা হয়, ওয়াসিফ, নাসিম এবং ফরিদ উদ্দিন মাসউদের উপযুক্ত বিচারের সম্মুখীন না করা হয় তাহলে আমাদের ধৈর্যের বাঁধ ভেঙে গেলে টঙ্গী ময়দানের দিকে আমরা রোডমার্চ করতে বাধ্য হবো।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here