বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে। বন্যা ক্রমশ গ্রাস করছে রাজধানীর আশপাশের এলাকা। ঢাকার চারদিকের নদীর পানি বাড়ছে। আরো অবনতির আশঙ্কা করছেন বন্যা বিশেষজ্ঞরা।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের পানি ও বন্যাব্যবস্থাপনা ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ড. তারেকুল ইসলাম জানিয়েছেন, যমুনা ও ব্রহ্মপুত্রের পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হবার কারণে মধ্য অঞ্চলের বন্যা ঢাকার দিকে এগিয়ে আসছে। এ পানি আরো বৃদ্ধি পাবার পূর্বাভাস রয়েছে। ফলে ঢাকার পার্শ্ববর্তী নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হবার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

বন্যা সতর্কীকরণ কেন্দ্রের তথ্য অনুযায়ী- ব্রহ্মপুত্র, যমুনা, ঘাঘট, তিস্তা, ধরলা, করতোয়া, পদ্মা ও আড়িয়ালখাঁ নদের পানি এখনো বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে উত্তর ও মধ্যাঞ্চলের জেলা গাইবান্ধা, জামালপুর, শেরপুর, টাঙ্গাইল, কুড়িগ্রাম, সিরাজগঞ্জ, বগুড়া, রাজবাড়ী, মানিকগঞ্জ, শরীয়তপুর ও মাদারীপুরে বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি হয়েছে। এদিকে সুরমা, সারী, ধলাই নদীর পানি ধীরে ধীরে কমছে। ফলে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে পূর্বাঞ্চলের জেলা সুনামগঞ্জ ও সিলেটে।

ওদিকে বন্যদুর্গত এলাকায় জনদূর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে। হাজার হাজার মানুষ আশ্রয়হীন হয়ে পড়েছেন। তীব্র হয়েছে নদীভাঙন ও জলাবদ্ধতা।

গতকাল মঙ্গলবার সকালে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে, দেশে আগামী  তিনদিন বৃষ্টিপাতের প্রবণতা অব্যাহত থাকবে। এ সময় রংপুর, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারী ধরণের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসাথে দেশের কোথাও-কোথাও মাঝারী থেকে ভারী বর্ষণ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সূত্র : পার্সটুডে

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here