বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাজা ছয় মাসের জন্য স্থগিত করে তাকে মুক্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এই সময়ে তিনি বাসায় থেকে চিকিৎসা নেবেন। তার বয়স বিবেচনায় মানবিক কারণে সরকার সদয় হয়ে সাজা স্থগিত করেছে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) বিকালে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ ঘোষণা দেন। মন্ত্রী বলেন, ফৌজদারি কার্যবিধির ৪০১ ধারার ১ উপধারা মোতাবেক দুই শর্তে তার সাজা স্থগিতের সিদ্ধান্ত হয়েছে। তাকে মুক্তি দেয়ার বিষয়ে এখন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ব্যবস্থা নেবে। মুক্তি পেলে তিনি বিদেশে যেতে পারবেন না। চিকিৎসার জন্য শুধু বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ^বিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে যেতে পারবেন।

আইনমন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাজার প্রক্রিয়া আগামী ৬ মাসের জন্য স্থগিত করে তাঁর মুক্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। তবে এই সময়ের মধ্যে বেগম জিয়া দেশের বাইরে ভ্রমণ করতে পারবেন না। এই সময়ে বেগম জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার স্বার্থে দেশের বাইরে পাঠানো মানে তাকে সুইসাইড করতে বলা। অতএব তিনি বাসাতেই থাকবেন। বাসায় থেকেই চিকিৎসা নেবেন। তাঁর সাজা স্থগিত করা হয়েছে ফৌজদারী কার্যবিধির ৪০১/১ ধারা অনুযায়ী।’

আইনমন্ত্রী বলেন, দুটি শর্তে তাঁকে মুক্তি দেয়া হচ্ছে। সেগুলো হলো- এই সময়ে তাঁর ঢাকায় নিজের বাসায় থাকতে হবে এবং তিনি বিদেশে যেতে পারবেন না।’

বাসায় থাকাকালীন বেগম জিয়া চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে যেতে পারবেন কিনা- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘হাসপাতালে তো যেতেই পারবেন। কিন্তু হাসপাতালে যদি ভর্তিই হতে হয়, তাহলে বাংলাদেশের সবচেয়ে মানসম্পন্ন হাসপাতাল সেখানে তো তিনি আছেনই। হাসপাতালে তাঁকে ভর্তি হতে হলে সেটা অবস্থার প্রেক্ষিতে বোঝা যাবে। কিন্তু শর্ত হচ্ছে, তিনি ঢাকায় নিজ বাসায় থেকে চিকিৎসা গ্রহণ করবেন। দেশের বাইযে গমন করতে পারবেন না।’

বেগম জিয়া কখন মুক্তি পাচ্ছেন- জানতে চাইলে আনিসুল হক বলেন, ‘যখন থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তাকে মুক্তি দেবে।’

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here