করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় ফের মুখরিত হয়ে উঠেছে পবিত্র কাবা প্রাঙ্গণ। ১ নভেম্বর থেকে সৌদি আরবের বাইরে থেকেও মুসল্লিরা ইবাদতের উদ্দেশে মসজিদুল হারামে প্রবেশ করতে পারবেন।

সৌদির হজ ও ওমরাহ বিষয়ক জাতীয় কমিটির সদস্য হানি আল-ওমাইরি জানিয়েছেন, ওমরা পালনে বিদেশ থেকে আগতদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত সব ধরনের সাবধানতা এবং নিয়ম-কানুন কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে।

সৌদির হজ ও ওমরাহ বিষয়ক জাতীয় কমিটি জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত ২৫ লাখ মানুষ ওমরাহ সেবা দিতে তৈরি হওয়া অ্যাপ ‘ইতমারনা’ ইন্সটল করেছেন। এদের মধ্যে ১২ লাখ তাদের রেজিস্ট্রিশন সম্পন্ন করেছেন।

করোনার সংক্রমণ ও বিস্তার রোধে দীর্ঘ ছয় মাস হজ ও ওমরাহ পালনে নিষেধাজ্ঞা থাকার পরে নির্দিষ্ট কিছু নিয়ম মেনে ৪ অক্টোবর থেকে হাজীদের জন্য হারামাইন শারিফাইনকে উন্মুক্ত করা হয়।

মোট তিন ধাপে এবারের ওমরাহ পালিত হচ্ছে। প্রথম দুটি ধাপের পর তৃতীয় ধাপে গিয়ে ওমরাহ পালন স্বাভাবিক করা হবে।

প্রথম ধাপে একজন ওমরাহ পালনকারী মাত্র তিন ঘণ্টা সময় পেয়েছেন। অর্থাৎ নির্ধারিত এলাকায় প্রবেশ ও ওমরাহ পালন শেষে বের হওয়া পর্যন্ত তিন ঘণ্টা সময় বরাদ্দ ছিল।

প্রথম ধাপে প্রতিদিন ছয় হাজার মানুষ ওমরাহ পালন করেছেন। ওমরাহ পালনের দ্বিতীয় ধাপ শুরু হল গতকাল থেকে। মসজিদুল হারামের ধারণক্ষমতার ৭৫ শতাংশ তথা ১৫ হাজার লোক ওমরাহ পালন করতে পারবেন এই ধাপে।

তৃতীয় ধাপ শুরু হবে আগামী ১ নভেম্বর থেকে। তখন বিদেশি নাগরিকরাও ওমরাহ পালনের অনুমতি পাবেন। এ ধাপে একসঙ্গে ২০ হাজার এবং প্রতিদিন ৬০ হাজার লোক ওমরাহ পালন করতে পারবেন।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here