মরণঘাতী করোনাভাইরাসে বিপর্যস্ত চীন। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এরই মধ্যে মৃতের সংখ্যা তিনশ’ ছাড়িয়েছে। আক্রান্ত হয়েছে ১১ হাজারেরও বেশি মানুষ।

দেশটির উহান থেকে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বব্যাপী। ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, ফিলিপাইন, ম্যাকাও, নেপালসহ ২০টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। এসব দেশেও শতাধিক আক্রান্ত হয়েছে। ফিলিপাইনে মারা গেছে একজন।

এই আতঙ্কের মধ্যে নতুন শঙ্কার কথা জানিয়েছে চীনা কর্তৃপক্ষ। দেশটিতে ছোঁয়াচে এইচ ফাইভ এন ওয়ান ভাইরাসের সংক্রমণ দেখা দিয়েছে। যে ভাইরাসটি বার্ড ফ্লু নামে বেশি পরিচিত। তবে এখনো বার্ড ফ্লু আক্রান্ত কোনো রোগী শনাক্ত হয়নি।

চীনের কৃষি মন্ত্রণালয় রবিবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, হুনান প্রদেশে বার্ড ফ্লুর প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। তবে এখনো কোনো মানুষ এটিতে আক্রান্ত হয়েছে এমন খবর পাওয়া যায়নি। খবর সিনহুয়ার।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, হুনান প্রদেশের শাওয়াং শহরের শুয়াংকিং জেলায় একটি খামারে ব্যাপকহারে বার্ড ফ্লুর প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। এরই মধ্যে ওই খামারে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৭ হাজার ৮৫০টি পোল্ট্রি মুরগি এবং সাড়ে চার হাজার পাখির মৃত্যু হয়েছে।

হুনান হচ্ছে উহান প্রদেশের পাশ্ববর্তী প্রদেশ। এই উহান থেকেই বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস।

করোনাভাইরাসের মোকাবেলা করতে চীন যখন হিমশিম খাচ্ছে তখনই বার্ড ফ্লু ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কার কথা জানায় দেশটির কৃষি মন্ত্রণালয়। এরই মধ্যে বার্ড ফ্লু ঠেকাতে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে চীন।

বার্ড ফ্লু ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত কয়েক দশকে বিশ্বজুড়ে বহু লোক নিহত হয়েছে। ২০০৯-১০ এবং ২০১৩-১৪ সালে এটি বিশ্বব্যাপী ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়ে। সেসময় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও বিভিন্ন দেশ এটি প্রতিরোধে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করে।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here