জুমার খুতবায় উসকানিমূলক কথা বলার অভিযোগে মুসলমানদের প্রথম কিবলা ফিলিস্তিনের আল আকসা মসজিদের গ্র্যান্ড ইমাম ও খতিব শায়খ ইকরিমা সাবরিকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

রোববার ইহুদিবাদী অবৈধ রাষ্ট্রটির চাপে জেরুজালেমের সর্বোচ্চ ইসলামিক পরিষদের চেয়ারম্যান ও আল আকসার খতিব শায়খ ইকরিমাকে এক সপ্তাহের জন্য সাময়িক বরখাস্ত হয় বলে ওয়াফা নিউজ ও ডেইলি সাবাহ আরবি জানিয়েছে।

ইসরাইলের দাবি, গত শুক্রবার জুমার খুতবায় দখলদার রাষ্ট্রটির বিরুদ্ধে উস্কানিমূলক কথা বলার জেরে তার বিরুদ্ধে এ নিষেধাজ্ঞাদেশ দেয়া হয়েছে।

সংক্ষিপ্ত এক বিবৃতিতে শায়খ ইকরিমা সাবরি সাংবাদিকদের বলেন, জেরুজালেমের আল-কিশলাহ পুলিশ স্টেশনে জিজ্ঞাসাবাদের সময় পুলিশ তাকে ২৫ জানুয়ারী পর্যন্ত আল-আকসা মসজিদে না যাওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে।

ওয়াদি হিলডওয়ে নামে বেসরকারী একটি মানবাধিকার সংস্থার বিবৃতিতে বলা হয়, শুক্রবারের খুতবায় উসকানি দেয়ার অভিযোগে শেখ সাবরিকে শনিবার জিজ্ঞাসাবাদ করে ইসরাইলি পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদের পরে শায়খ ইকরিমা সাবরির নিষেধাজ্ঞাদেশ আরও বাড়তে পারে।

এর আগে গ্র্যান্ড ইমামের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য উপস্থিত হওয়ার সমন জারি করে দখলদার বাহিনী।

ওয়াফা নিউজ এজেন্সি জানায়, এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে রোববার ভোর থেকেই জেরুজালেমে বসবাসরত মুসলমানদের ওপর অস্বাভাবিক কঠোরতা শুরু করেছে ইহুদিবাদী সৈন্যরা। এসময় সিলওয়ানের কয়েকটি দোকান ও বাসস্ট্যান্ডে হামলা চালিয়েছে তারা।

আল আকসার গ্র্যান্ড ইমাম শায়খ ইকরিমা সাবরিকে আল-আকসা মসজিদ থেকে সরিয়ে দেয়ার ঘটনা এটিই প্রথম নয়, এর আগেও কয়েকবার এমন নিষেধাজ্ঞার মুখোমুখি হয়েছিলেন তিনি।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here