US President Donald Trump attends the Congressional Picnic on the South Lawn of the White House in Washington, DC, on June 21, 2019. (Photo by SAUL LOEB / AFP)

ইরানি কমান্ডার জেনারেল কাসেম সোলেমানির ‘খুনি’ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মাথার মূল্য ৮ কোটি ডলার ঘোষণা করেছে ইরানের ক্ষুব্ধ জনতা। সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশিত এক ভিডিওতে দেখা যায়, সোলেমানিকে হত্যার প্রতিবাদে লাখ লাখ মানুষ রোববার তেহরানে বিক্ষোভ দেখান।

এদিন ইরাক থেকে ইরানে সোলেমানির লাশ পৌঁছানোর পর তেহরান জনসমুদ্রে পরিণত হয়। এ জনস্রোত থেকে এক পুরুষ কণ্ঠে ট্রাম্পের মাথার বিনিময়ে পুরস্কার ঘোষণা করতে শোনা গেছে বলে জানিয়েছে ডেইলি মিরর। ধারণা করা হচ্ছে, ওই পুরুষ কণ্ঠটি সোলেমানিসহ তার সহযোদ্ধাদের জানাজার আয়োজক কোনো ব্যক্তির।

তিনি বলেন, ইরানের ৮ কোটি মানুষের প্রত্যেকের পক্ষ থেকে এক ডলার করে দিলে ৮ কোটি ডলার হবে। যার নির্দেশে এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে, তার মাথা এনে দিতে পারলে আমাদের সবার পক্ষ থেকে পুরস্কার হিসেবে ৮ কোটি ডলার দেয়া হবে। ভিডিওতে বলতে শোনা যায়, কেউ ওই হলুদ চুলের পাগলের (ট্রাম্পের) মাথা এনে দিতে পারলে ইরানের জনগণের পক্ষ থেকে তাকে ৮ কোটি ডলার পুরস্কার দেয়া হবে।

গত শুক্রবার ইরাকের রাজধানী বাগদাদের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলায় ইরানের ইসলামিক রেভল্যুশনারি বাহিনীর শাখা কুদস বাহিনীর ক্ষমতাধর জেনারেল কাসেম সোলেমানিকে হত্যা করা হয়। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের নির্দেশেই সোলেমানিকে হত্যা করা হয় বলে পরে দায় স্বীকার করে পেন্টাগন।

সে কারণেই ট্রাম্পের ওপর ক্ষুব্ধ ইরান। এই হত্যাকাণ্ডের পর ইরান ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা শুরু হয়েছে। ওই হামলায় ইরাকের ইরান সমর্থিত হাশদ আল-শাবি নামে পরিচিত মিলিশিয়া বাহিনী পপুলার মোবিলাইজেশন ইউনিটের উপপ্রধান আবু মাহদি আল-মুহানদিসও নিহত হন।

সোলেমানিকে হত্যার ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রকে কঠোর প্রতিশোধের হুমকি দিয়েছে ইরান। একই সঙ্গে সোলেমানির হত্যাকারী ট্রাম্পের মাথার বিনিময়ে বড় অঙ্কের পুরস্কার ঘোষণা করা হয়েছে। ইরাকও এ হত্যাকাণ্ডের প্রতিশোধ নেয়া শুরু করেছে। গত রোববার রাতে দেশটির পার্লামেন্ট ইরাক থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব পাস করেছে।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here