ইরানের সেনাবাহিনীর নৌ-বিভাগের প্রধান রিয়ার অ্যাডমিরাল হোসেইন খানযাদি যৌথ নৌমহড়ায় অংশ নিতে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। রোববার ইরান, চীন ও রাশিয়ার অংশগ্রহণে যৌথ মহড়ার অবকাশে এ আমন্ত্রণ জানান তিনি।

খানযাদি আরও বলেন, ভবিষ্যতে এ ধরণের আরও যৌথ নৌমহড়া অনুষ্ঠিত হবে এবং মধ্যপ্রাচ্যের অন্যান্য দেশও ওই সব মহড়ায় অংশ নিতে পারবে। অন্য দেশগুলোকেও আমরা আমন্ত্রণ জানাচ্ছি।

নৌপ্রধান বলেন, চীন ও রাশিয়ার সঙ্গে যৌথ মহড়া সাফল্যের সঙ্গে এগিয়ে যাচ্ছে। এ পর্যন্ত মহড়া সফল হয়েছে। পশ্চিম এশিয়ায় সর্বোত্তম নিরাপত্তা পরিস্থিতি গড়ে তুলতে এ অঞ্চলের দেশগুলোর সহযোগিতা চান তিনি।

তিনি বলেন, শত্রুরা গত ৪০ বছর ধরে নিষেধাজ্ঞার মাধ্যমে ইরানকে কোণঠাসা করার চেষ্টা করেছে, কিন্তু ইরান বিরোধী নিষেধাজ্ঞা কাজে আসেনি বরং এর ফলে আঞ্চলিক দেশগুলোর মধ্যে ঐক্য জোরদার হয়েছে।

খানযাদি বলেন, পশ্চিম এশিয়ায় আমেরিকার শক্তি প্রদর্শনের যুগ শেষ হয়ে গেছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে অবশ্যই মধ্যপ্রাচ্য ত্যাগ করতে হবে বলে তিনি জানান।

১৯৭৯ সালে ইরানে বিপ্লব সফল হওয়ার পর এই প্রথম তিন দেশ এ ধরনের নৌ মহড়া চালাচ্ছে। ভারত মহাসাগর, পারস্য উপসাগর ও ওমান সাগরের গুরুত্বপূর্ণ পানিসীমায় আন্তর্জাতিক বাণিজ্য নিরাপত্তা রক্ষা, জলদস্যুতা এবং সামুদ্রিক সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলার লক্ষ্য নিয়ে গতকাল থেকে মহড়া শুরু হয়েছে এবং সোমবার পর্যন্ত তা অব্যাহত থাকবে।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here