হাম্মাদ সাফি

খালেদ সাইফুল্লাহ সাদী : হাম্মাদ সাফী। বয়স মাত্র ১১ বছর। পাকিস্তানে জন্ম নেয়া এই বালক যেন এ সময়ের আল্লামা ইকবাল। মনে করা হয়, তার মাধ্যমে আল্লামা ইকবালের দর্শন ও মতবাদ পুনর্জীবিত হচ্ছে। তাকে নিয়ে বেশ সাড়া পড়েছে বর্তমান বিশ্বে। তার বিস্ময়কর দৃষ্টিভঙ্গি বিস্মিত করেছে অসংখ্য মানুষকে। এই স্বল্প বয়সেই সে সর্বকনিষ্ঠতম প্রফেসর, ফ্রিল্যান্সার, মোটিভেশনাল স্পিকার এবং লেখক হওয়ার সুনাম অর্জন করে ফেলেছে।

কিছুদিন পূর্বে পাকিস্তানের “হাম টিভি” তাকে নিয়ে আলোচনায় বসে। সেখানে হাম্মাদ সাফী তার বেড়ে উঠার বিস্ময়কর কাহিনী বর্ণনা করার পাশাপাশি তার চিন্তা চেতনা ও লক্ষ্য উদ্দেশ্যগুলো উল্লেখ করে। তার এমন জ্ঞানগর্ভ আলোচনায় মুগ্ধ হয়ে যায় হাম টিভির উপস্থাপিকাদ্বয়।

তাকে প্রশ্ন করা হয়, কিভাবে সে এই পর্যায়ে পৌঁছল। হাম্মাদ সাফী উত্তরে বলে, সে সাধারণ স্কুল পড়ুয়া ছাত্রদের মতই ছিল। কিন্তু তার মায়ের দোয়া, যোগ্য শিক্ষক এবং আল্লামা ইকবালের কবিতা তার জীবন পাল্টে দিয়েছে। এসব কিছুর বদৌলতে আজ সে এমন সম্মানজনক পর্যায়ে পৌছেছে।

ছোট বলে অনেকেই প্রথমে ভাবে, এই ছোট বালক কী আর বলবে? কিন্তু স্টেজে দাঁড়িয়ে যখন ১ ঘন্টা বা ২ ঘন্টা দীর্ঘ বক্তব্য দেয় তখন শ্রোতারা বিস্মিত না হয়ে পারে না।

আলোচনার এক পর্যায়ে সে বলে, সে আল্লামা ইকবাল রহ. এর চিন্তা-চেতনা এবং তাঁর মতবাদ কে বিশ্বাস করে। নিজের মাঝেও তা লালন করার চেষ্টা করে তাঁর যাবতীয় চিন্তা চেতনাকে।

ইতিমধ্যে বিভিন্ন সোস্যাল নেটওয়ার্ক যেমন ফেসবুক, টুইটার এবং ইউটিউবেও প্রচুর ভক্ত তৈরি হয়ে গেছে। তার সামান্য আলোচনার জন্য জ্ঞানপিপাসু মানুষগুলো প্রহর গুনতে থাকে।

তার সম্পর্কে আরো জানতে তার “হাম্মাদ সাফী” ইউটিউব চ্যানেলে ঘুরে আসতে পারেন।

আশা রাখা যায়, এ সময়ে এমন এক বিস্ময় বালকের আগমন পাকিস্তানসহ সারা বিশ্বকে একটি সুস্থ ও সুন্দর ভবিষ্যত উপহার দিবে। কেননা তার পথচলা মানুষকে উজ্জীবিত করে।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here