বর্তমানে চরম বৈরী সম্পর্ক বিরাজ করছে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে। জম্মুকাশ্মীরে সন্ত্রাসী হামলাকে কেন্দ্র করে সম্প্রতি উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এই দু’দেশের মধ্যে। এরপর ভারত কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে ঘোষণা দিলে চরমে পৌঁছে সেই উত্তেজনা।

তবে চরম বৈরী সম্পর্কের মধ্যেও মাঝ আকাশে ১৫০ যাত্রী নিয়ে ভারতীয় একটি বিমান বিপাকে পড়লে সেটি রক্ষা করেছে পাকিস্তান।

পাকিস্তান বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের তৎপরতায় দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পায় বিমানটি। প্রাণে বেঁচে যান বিমানের যাত্রীরা।

বৃহস্পতিবার বিমানটি ভারতের জয়পুর থেকে ওমানের রাজধানী মাসকাটের দিকে উড়ে যাচ্ছিল।

ভারতের সংবাদমাধ্যম আউটলুক জানায়, সেদিন পাকিস্তানের দক্ষিণ সিন্ধু প্রদেশে প্রাকৃতিক পরিবেশ ভাল ছিল না। ঘন ঘন বজ্রবিদ্যুৎ হচ্ছিল। করাচির আকাশসীমায় বিমানটি বজ্রবিদ্যুতের মুখে পড়ে। যার কারণে বিমানটি ৩৬,০০০ ফুট উচ্চতা থেকে ৩৪,০০০ ফুট উচ্চতায় নেমে আসে।

এরপর পাইলট নিকটবর্তী বিমানবন্দরে জরুরি প্রটোকল মেনে বিপদ বার্তা পাঠায়। পাকিস্তানের বিমান পরিবহণ নিয়ন্ত্রক পাইলটের আহ্বানে সাড়া দিয়ে পাকিস্তান আকাশসীমা দিয়ে বাকি পথ যাত্রার নির্দেশ দেয় বলে জানা গেছে।

বালাকোটের বিমান হামলার পর পাকিস্তান কয়েক মাস পর্যন্ত তাদের আকাশসীমা ভারতের জন্য বন্ধ করে দেয়। ২৬ ফেব্রুয়ারি থেকে ভারত পাকিস্তানি আকাশসীমা ব্যবহার করতে পারেনি।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সৌদি সফরে পাকিস্তান আকাশসীমা ব্যবহারের অনুমতি চেয়ে আবদেন করে ভারত সরকার। কিন্তু সেই আবেদন খারিজ করে দেওয়া হয়।

কিন্তু বিপদের মুহূর্তে ভারতীয় বিমানের দেড় শতাধিক যাত্রীর প্রাণ রক্ষা করল পাকিস্তান।

সূত্র: খালিজ টাইমস

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here