ইরানে একটি নতুন তেলের খনির সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। গতকাল রবিবার এমনই জানিয়েছেন সেদেশের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। নতুন এই তৈল খনিতে ৫,৩০০ কোটি ব্যারেল তেল মজুদ থাকতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে। 

ইরানের অর্থনীতি মূলত তেল নির্ভর। নতুন এই তেলের খনির সন্ধান সেদেশের অর্থনীতিতে নয়া শক্তির সঞ্চার করবে বলে মনে করা হচ্ছে। রুহানির বক্তব্য অনুসারে, দেশের দক্ষিণপশ্চিমের খুজেস্তান প্রদেশে নতুন এই তেলের খনির সন্ধান পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, নতুন এই তৈলক্ষেত্রটির আয়তন প্রায় ২,৪০০ বর্গ কিলোমিটার। ইরানের সবচেয়ে বড় তেলক্ষেত্র আহভাজে। সেখানে ৬ হাজার ৫০০ কোটি ব্যারেল তেল মজুদ আছে। খুজেস্তান প্রদেশে আবিষ্কৃত নতুন খনিটি সেদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম তেলের খনি হতে চলেছে। এখানে যে পরিমাণ তেল মজুদ আছে তা যুক্ত করল ইরানের মোট সঞ্চিত তৈল ভান্ডার এক ধাক্কায় এক-তৃতীয়াংশ বৃদ্ধি পাবে।

বিশ্বের বৃহৎ তেল উৎপাদনকারী রাষ্ট্রগুলির মধ্যে ইরান অন্যতম। তাদের অর্থনীতির একটা বড় অংশ তেলের উপর নির্ভরশীল। কিন্তু পরমাণু চুক্তি নিয়ে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার জেরে দেশটির তেল বিক্রি অনেক ধাক্কা খেয়েছে। যার প্রভাব পড়েছে সামগ্রিক অর্থনীতির ওপর। তেহরানের দাবি, ইরান তেল উত্তলন মাত্র ১ শতাংশ বাড়ালেই তাদের আয় ৩,২০০ কোটি মার্কিন ডলার বেড়ে যাবে।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here