ছবি সংগৃহীত

চীনের রাষ্ট্রীয় পত্রিকা গ্লোবাল টাইমসের দাবি, দেশটির উইঘুর মুসলিমদের মধ্যে জঙ্গিবাদ প্রবণতা বাড়ার পেছনে হালাল খাবার দায়ী। চীনের ঝিনঝিয়াং প্রদেশে হালাল খাবার বিক্রির বিরুদ্ধে কর্তৃপক্ষের অভিযানের পক্ষে যুক্তি তুলে ধরতে গিয়ে এ মন্তব্য করে পত্রিকাটি। খবর গার্ডিয়ানের।

এদিকে ঝিনঝিয়াংয়ের চীনা কর্তৃপক্ষ আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়ে হালাল খাবার বিক্রির বিরুদ্ধে অভিযানে নেমেছে। ঝিনঝিয়াংয়ের রাজধানী উরুমকি থেকে শুরু হয়েছে এ অভিযান

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম সুত্রে জানা গেছে, চলতি সপ্তাহে উরুমকিতে চীনা কমিউনিস্ট পার্টির নেতারা হালাল খাবার খাওয়ার প্রবণতার বিরুদ্ধে আদর্শিক যুদ্ধ চালাতে কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

সম্প্রতি কমিউনিস্ট পার্টি ও স্থানীয় সরকারের হালাল খাবার বিরোধী অভিযানের পক্ষে এক প্রবন্ধ প্রকাশ করে চীনের রাষ্ট্রীয় পত্রিকা গ্লোবাল টাইমস। এতে বলা হয়, ‘হালাল খাবারের কারণে ধর্মীয় ও ধর্মনিরপেক্ষতার মধ্যে দেয়াল সৃষ্টি হয়। ফলে সহজেই ধর্মীয় উগ্রবাদে জড়িয়ে পড়ে মুসলিমরা।’

উল্লেখ্য যে, চীনের ঝিনঝিয়াং প্রদেশে দীর্ঘদিন ধরে অস্থিরতা ও সংঘাত চলছে। এজন্য জঙ্গিবাদকে দায়ী করে থাকে চীন। অথচ পরিস্থিতির আলোকে এটিকে জাতিগত নিধন বলছে বিশ্ব। কেননা সেখানে কেবল মুসলিমরাই নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন।

প্রদেশটিতে প্রায় এক কোটি বিশ লাখ মুসলমানের বসবাস। সেখানে তাদের ওপর কর্তৃপক্ষ নানা প্রকার নির্যাতন চালায় বলে অভিযোগ রয়েছে।

২০১৮ সালে প্রকাশিত জাতিসংঘের এক রিপোর্টে বলা হয়, বর্তমানে চীনে ১০ লাখ মুসলিমকে ক্যাম্পে আটক রাখা হয়েছে। যদিও চলতি বছরের আগস্টে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে চীন।

মানবাধিকার সংগঠনগুলো বলছে, এসব ক্যাম্পের মূল উদ্দেশ্য হলো মুসলিমদের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিংয়ের অনুগত করা এবং তাদের বিশ্বাস ত্যাগ করতে উদ্বুদ্ধ করা।

সুত্রঃ ইত্তেফাক

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here