ভারত হিন্দু রাষ্ট্র হওয়া উচিত

পাঁচ রাজ্যের ভোটে যখন গেরুয়া ব্রিগেডের শোচনীয় অবস্থা ঠিক তখন হিন্দুত্ববাদীদের মতো মন্তব্য করে বিতর্কের জন্ম দিলেন মেঘালয়ের হাইকোর্টের এক বিচারপতি। তিনি বলেছেন, ভারত হিন্দু রাষ্ট্র হওয়া উচিত। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দেশকে রক্ষা করুন।

বিচারপতির নাম আর সি সেন। তিনি দেশভাগের সময়কার রক্তপাত ও অন্যান্য ঘটনার উল্লেখ করে বলেন, ভারতকে হিন্দু রাষ্ট্র হিসাবে ঘোষণা করা উচিত। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে যে সরকার চলছে তা পরিস্থিতির গুরুত্ব বোঝে। দেশের জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিক সরকার। জাতীয় স্বার্থে তাঁকে সমর্থন করুন আমাদের মুখ্যমন্ত্রী মমতাজি।

আমন রানা নামে এক ব্যক্তির করা মামলার শুনানিতে বিচারপতি ওই মন্তব্য করেন। আমন সেনাবাহিনীতে চাকরি পেয়েছেন। কিন্তু মেঘালয় সরকার তাঁকে ডোমিসাইল সার্টিফিকেট অর্থাৎ মেঘালয়ের স্থায়ী বাসিন্দা হিসাবে শংসাপত্র দেয়নি। বিচারপতি আর সি সেন বলেন, এখন রাজ্যের বাসিন্দাদের পক্ষে ডোমিসাইল সার্টিফিকেট এবং স্থায়ী বাসিন্দার সার্টিফিকেট পাওয়া খুব কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাঁদের সমস্যার কথা আমি বুঝি।

জাতীয় নাগরিকপঞ্জি বা এনআরসি সম্পর্কেও বিচারপতি মন্তব্য করেন। তাঁর কথায়, এনআরসি-র প্রক্রিয়া ভুল। কারণ এর ফলে বহু বিদেশী ভারতের নাগরিক হিসাবে স্বীকৃতি পেয়ে গিয়েছে। অনেক ভারতীয় বাদ পড়েছেন। বিষয়টি খুব দুঃখজনক।

পর্যবেক্ষকরা বলেছেন, সাধারণত এই ধরনের কথা বলে আরএসএস ও অন্যান্য দক্ষিণপন্থী সংগঠন। তাদের দীর্ঘদিনের দাবি, ভারতকে হিন্দু রাষ্ট্র হিসাবে ঘোষণা করা হোক। যদিও হিন্দুত্ববাদীদের একাংশ এখন আর মোদীকে ত্রাণকর্তা মনে করেন না। তাঁদের ধারণা, মোদী রামমন্দির গড়তে ব্যর্থ হয়েছেন। অযোধ্যায় মন্দির নির্মাণের জন্য প্রয়োজনে লোকসভায় অধ্যাদেশ আনা উচিত ছিল। কিন্তু মোদী তা আনেননি।

বিচারপতি আর সি সেনের কথায় স্পষ্ট, তিনি মোদীর প্রতি বিশেষ আস্থা রাখেন। কিন্তু এক বিচারপতি যদি হিন্দুত্ববাদীদের মতো কথা বলেন, তাহলে বিচারব্যবস্থার ওপরে মানুষের আস্থা হ্রাস পাবে।

ডিভাইড অ্যান্ড রুল পলিসির কথা উল্লেখ করে বিচারপতি বলেন, আমরা সকলেই জানি, একসময় ভারত বিশ্বের বৃহত্তম দেশগুলির অন্যতম ছিল। পাকিস্তান, বাংলাদেশ এবং আফগানিস্তান নামে কোনও দেশই ছিল না। সব মিলিয়ে একটাই দেশ ছিল। তা ছিল হিন্দু রাজত্ব। পরে মোঘলরা এসে ভারতের নানা অংশ দখল করে। তারা এই দেশ শাসন করতে থাকে। তাদের আমলে অনেককে গায়ের জোরে ধর্মান্তর করানো হয়।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here