যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে অভ্যন্তরীণ উগ্রবাদী-সন্ত্রাসীদের হামলার আশঙ্কা নিয়ে দেশটির সর্বত্র উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে। এ অবস্থায় ডিপার্টমেন্ট অব হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ২৭ জানুয়ারি বুধবার যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে বিশেষ সতর্কতা জারি করেছে।

ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রশাসনের দায়িত্ব নেওয়ার এক সপ্তাহের মাথায় এই সতর্কতা জারি করা হলো। গত এক বছরের মধ্যে এটিই প্রথম সতর্কতা জারির ঘটনা।

সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আমলে যুক্তরাষ্ট্রে রক্ষণশীল চরমপন্থার উত্থান ঘটে। যুক্তরাষ্ট্র এখন বাইরের সন্ত্রাসী-জঙ্গিদের চেয়ে দেশের ভেতরে গড়ে ওঠা শ্বেতাঙ্গ উগ্রবাদী-সন্ত্রাসীদের নিয়ে বেশি উদ্বিগ্ন।
গতকাল বুধবার দেওয়া সতর্কবার্তায় বলা হয়, কিছু অভ্যন্তরীণ হিংস্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠী গত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জালিয়াতির মিথ্যা দাবি ঘিরে সংগঠিত হচ্ছে। এই গোষ্ঠী সংহিতার পথ অবলম্বন করতে চাইছে। তারা ঘৃণা-বিদ্বেষ ছড়িয়ে সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করছে। চরমপন্থী এই গোষ্ঠী তাদের উগ্রবাদী আদর্শ প্রতিষ্ঠায় সচেষ্ট। তারা মানুষকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে। অভ্যন্তরীণ এই সন্ত্রাসীরা যুক্তরাষ্ট্রে নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড বা যেকোনো সশস্ত্র সন্ত্রাসী হামলা চালাতে পারে।

তথ্য-উপাত্ত অনুযায়ী, ক্ষমতার পালাবাদল নিয়ে বিক্ষুব্ধ কিছু সহিংস উগ্রবাদী সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা করছে। সেইসঙ্গে সহিংসতা চালাতে দেওয়া হচ্ছে উসকানি।

সাম্প্রতিক সময়ে করোনা মহামারি মোকাবিলা, গত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফলাফল, পুলিশি তৎপরতা, নাগরিক আন্দোলন, বর্ণবিদ্বেষ, অভিবাসনবিরোধিতা—এসব নিয়ে একটি মহলের চরমপন্থী মনোভাব ও উগ্রবাদী তৎপরতার উপস্থিতি যুক্তরাষ্ট্রে লক্ষণীয় হয়ে উঠেছে বলে সতর্কবার্তায় উল্লেখ করা হয়।

৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে হামলার সময় উগ্রবাদী-চরমপন্থীদের ব্যাপক তৎপরতা দেখা গেছে। এর জের ধরে ২০২১ সালের প্রথম কয়েক মাস তাদের আরও এমন তৎপরতার আশঙ্কার কথা জানিয়েছে হোমল্যান্ড সিকিউরিটি বিভাগ।

সূত্র : বিবিসি

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here