গণতন্ত্র, অধিকার ও স্বাধীনতার প্রশ্নে পশ্চিমা বিশ্বের আত্মসমালোচনা করা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান। যুক্তরাষ্ট্রে সাম্প্রতিক ক্যাপিটল সহিংসতার পরিপ্রেক্ষিতে এই মন্তব্য করলেন তিনি।

শনিবার ভিডিও লিংকের মাধ্যমে তুরস্কের দক্ষিণ-পূর্বে নতুন একটি সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বক্তৃতায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

এরদোগান বলেন, ‘এই উদাহরণ আমরা কয়েক মাস আগেই ফ্রান্সে দেখেছি। যুক্তরাষ্ট্রেও সাম্প্রতিক ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে একই ঘটনার সাক্ষী আমরা হয়েছি। সকল ঘটনাই পশ্চিমা বিশ্বকে গণতন্ত্র, অধিকার ও স্বাধীনতার বিষয়ে আন্তরিক আত্মসমালোচনার উপযোগী করে তুলেছে।’

তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘সকল ঘটনাপ্রবাহে পশ্চিমা বিশ্বের গণতন্ত্র, অধিকার ও স্বাধীনতার প্রশ্নে নিজের সমালোচনা করার প্রয়োজন হয়ে পড়েছে। যদি এই আত্মসমালোচনা করা না হয় এবং ন্যায়ের প্রশ্নে পুঙ্খানুপুঙ্খ বিশ্লেষণ অতীতে আমাদের দেখা অন্যায়ের মতোই হয়, তবে এর অর্থ হচ্ছে বিশ্ব নতুন এক চৌরাস্তায় এসে পৌঁছেছে।’

গত সপ্তাহের বুধবার নভেম্বরের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের জো বাইডেনের জয়কে অনুমোদনের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটলে অধিবেশন শুরু হলে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থকরা ক্যাপিটল ভবনে ঢুকে সহিংসতা চালায়। এই সহিংসতায় অন্তত পাঁচজন নিহত হন।

এরদোগান তার বক্তব্যে বলেন, সংশ্লিষ্ট ঘটনায় তুরস্কের প্রতি ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিমুখী নীতি স্পষ্ট হয়েছে।

তিনি বলেন, সংশ্লিষ্ট পরিস্থিতিতে এই দেশগুলোর নেয়া ব্যবস্থাই তুরস্ক প্রয়োগ করেছে। যার কারণে এই দেশগুলো তুরস্ককে গণতন্ত্র চর্চায় অক্ষমতা এবং অধিকার ও স্বাধীনতা হরণের অভিযোগ করে আসছে।

এরদোগান জোর দিয়ে বলেন, ন্যায়, সমতা ও স্থিতিশীলতার ভিত্তিতে নতুন সাধারণ মূল্যবোধের এখন খুব প্রয়োজন, যা জাতি, বর্ণ, বিশ্বাস ও সংস্কৃতির ভিন্নতার বাধা পেরিয়ে সব মানুষকে একত্রিত করবে।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here