ভারতের কেরালার কোঝিকোড়ের কারুপুর বিমানবন্দরে অবতরণের সময় রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ে এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের একটি বিমান দু’টুকরা হয়ে গেছে। এ ঘটনায় পাইলটসহ ১৭ জন নিহত এবং ১২৩ জন আরোহী আহত হয়েছেন।

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির অনলাইন সংস্করণে বলা হয়েছে, দুবাই থেকে ছেড়ে আসা ফ্লাইট আইএক্স ১৩৪৪ মডেলের বিমানটি শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টা ৪০ মিনিটের দিকে কেরালার কোঝিকোড়ের বিমানবন্দরে আছড়ে পড়ে। ভারী বৃষ্টির মাঝে বিমানটি অবতরণের চেষ্টা করছিল। সে সময়ই বিমানের চাকা পিছলে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটে। এসময় পাইলট দীপক বসন্ত সাঠে ও তার সহকারী পাইলটসহ ১৭ জন নিহত হন।

ফ্লাইট ট্র্যাকিং ওয়েবসাইট ফ্লাইটরেডার টোয়েন্টিফোর জানিয়েছে, বিমানবন্দরে নামার আগে পাইলট আকাশে কয়েক দফা চক্কর দেন এবং রানওয়েতে নামার জন্য দুই দফা চেষ্টা করেন। কেন্দ্রীয় বেসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রী হরদীপ সিংহ পুরী টুইটারে জানিয়েছেন, রানওয়ে থেকে পিছলে গিয়ে বিমানটি ৩৬ ফুট খাদে পড়ে দু’টুকরো হয়ে যায়।

বিমানটিতে ১০টি শিশুসহ ১৮৪ জন যাত্রী, দুইজন বিমানচালক এবং ৫ জন বিমানকর্মী ছিলেন বলে বেসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে।

দুর্ঘটনার পর ২৪টি অ্যাম্বুল্যান্স এবং দমকলবাহিনীসহ জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী গিয়ে উদ্ধারকাজ শুরু করে। বিমানে আটকে পড়া সবাইকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে বলে বিমানবন্দর সূত্রে জানা গেছে। তবে আহতদের মধ্যে অন্তত ১৫ জনের অবস্থা গুরুতর। ফলে নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন টুইট করে জানিয়েছেন, কোঝিকোড়ের কারুপুরে বিমান দুর্ঘটনায় পুলিশ এবং দমকলকে প্রয়োজনীয় ব্য়বস্থা গ্রহণে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে  নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে উদ্ধারকাজ ও আহতদের চিকিৎসা জন্যও কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

স্থানীয় সংসদ সদস্য টিভি ইবরাহিম বলেন, ‘অনেককে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। সৌভাগ্যবশত উড়োজাহাজটিতে আগুন ধরেনি।’

এদিকে, দুর্ঘটনার খবর শোনার পর ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি টুইটারে লিখেছেন, ‘‘কোঝিকোড়ে বিমান দুর্ঘটনায় আমি অত্যন্ত মর্মাহত। যাঁরা প্রিয়জনকে হারিয়েছেন তাঁদের সমবেদনা জানাই। প্রার্থনা করি, আহতরা শিগগিরই সুস্থ হয়ে উঠুন। কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নের সঙ্গে কথা হয়েছে। সবরকম ভাবে সহযোগিতা করতে কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে রয়েছেন।’’

নরেন্দ্র মোদি

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ টুইটারে লিখেছেন, “কেরালার কোঝিকোড়ে এয়ার ইন্ডিয়ার এক্সপ্রেস বিমানের মর্মান্তিক দুর্ঘটনা সম্পর্কে জানতে পেরে দুঃখিত। এনডিআরএফকে (ন্যাশনাল ডিজাস্টার রেসপন্স ফোর্স) দ্রুত জায়গায় পৌঁছতে এবং উদ্ধারকাজে সহায়তা করার নির্দেশ দিয়েছি।”

বিমান দুর্ঘটনার বিস্তারিত তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে বিমান নিয়ামক সংস্থা ডিজিসিএ।  সূত্র : পার্সটুডে

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here