ইরানে মহামারী আকারে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় ৮৫ হাজার বন্দিকে সাময়িকভাবে মুক্তি দিয়েছে ইরান। এর মধ্যে রাজনৈতিক বন্দিও রয়েছেন। দেশটির বিচার বিভাগের মুখপাত্র গোলাম হোসেন ইসমাইলি মঙ্গলবার এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, এর মধ্যে প্রায় ৫০ শতাংশ নিরাপত্তা বিষয়ক বন্দি রয়েছেন, এ ছাড়াও কারাগারে ভাইরাসটি মোকাবিলায় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এর আগে ১০ মার্চ ইরানে নিযুক্ত মানবাধিকার বিষয়ক জাতিসংঘের বিশেষ দূত তেহরানকে জেলে বন্দি থাকা সব রাজনৈতিক বন্দিকে সাময়িক মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানান।
ইরানের সকল জেলগুলিতেও সংক্রমণ ব্যাপকহারে ছড়িয়ে পড়তে পারে এমন আশঙ্কায় আরও ৮৫ হাজার বন্দিকে সাময়িক সময়ের জন্য মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইরানের বিচার বিভাগ। ইরানের বিচার বিভাগের মুখপাত্র গোলাম হোসেন ইসমাইল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গোলাম হোসেন ইসমাইলি জানিয়েছেন, যাদের মুক্তি দেওয়া হয়েছে তাদের অর্ধেকই নিরাপত্তা সংক্রান্ত কারণে বন্দি ছিলেন। তবে ‘বন্দিদশা’ থেকে মুক্তি পেলেও খোলা আকাশের নিচে দাঁড়িয়ে স্বস্তির নিঃশ্বাসটুকু নিতে পারছেন না ওই বন্দিরা। আপাতত মারণ ভাইরাসের আক্রমণ থেকে বাঁচতে ‘জেলবন্দির’ পরিবর্তে ‘ঘরবন্দি’ হয়ে থাকতে হবে তাদের।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বরাত দিয়ে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা জানায়, এ ভাইরাসটিতে প্রায় ২ লাখ মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। আর এতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন প্রায় ৮ হাজার মানুষ।

ইরানে গত মাসের শেষের দিকে করোনাভাইরাসের প্রকোপ বৃদ্ধি পায়। আর এরপরেই বিভিন্ন জেলে ৫ বছরের কম সাজাপ্রাপ্ত বন্দিদের সাময়িক মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় ইরান সরকার। গত ৩ মার্চ প্রথম দফায় ৫৪ হাজার বন্দিকে মুক্তি দেওয়া হয়। কিন্তু সময় যত এগোচ্ছে ততই লাফিয়ে বাড়ছে মৃত ও আক্রান্তের সংখ্যা। সূত্র : স্কাই নিউজ, তাসনিম নিউজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here