যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেনের অবস্থা আরও সংকটময়। ভয়াবহ যুদ্ধের ফলে আল জাওফ প্রদেশের হাজার হাজার মানুষ ঘরবাড়ি ছেড়ে পালাচ্ছে। এমন সতর্কতা দিয়েছেন এই দেশটিতে জাতিসংঘের দূত মার্টিন গ্রিফিতস।

সরকারি সেনাদের বিরুদ্ধে ভয়ঙ্কর যুদ্ধ শেষে এ মাসের শুরুতে এ প্রদেশের রাজধানী আল হাজম দখল করে নেয় বিদ্রোহী হুতিরা। এর ফলে সেখানে স্থায়ী একটি যুদ্ধের আশঙ্কা বৃদ্ধি পেয়েছে। এ অবস্থায় মারিব প্রদেশ সফর করেন মার্টিন।

তিনি বলেন, ইয়েমেন এখন সংকটকালে। আমাদেরকে অস্ত্র থামাতে হবে, শুরু করতে হবে রাজনৈতিক সমাধান প্রক্রিয়া।

তা না হলে ভয়াবহ এক যুদ্ধের দিকে ধেয়ে যাবে ওই এলাকা। তাই এখনই যুদ্ধ থামাতে হবে। ওই অঞ্চলের দখল নিতে সেনা এডভেঞ্চার ব্যর্থ হতে পারে। এমন অবস্থায় ইয়েমেনকে আরও অনেক অনেক বছরের যুদ্ধে টেনে নেয়া হবে। আল জাজিরা।

রেডক্রস বলেছে, আল জাওফে যুদ্ধরত পক্ষগুলোর মধ্যকার লড়াইয়ের ফলে মারিব প্রদেশের কয়েক লাখ মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে।

শনিবার এক বিবৃতিতে রেডক্রস বলেছে, তারা ইয়েমেন রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সহায়তায় ৭০ হাজার মানুষ বা ১০ হাজার পরিবারকে খাদ্য, তাঁবু, কম্বল, জেরিক্যান, বেসিনসহ বিভিন্ন রকম সহায়তা দিয়েছে।

এখন আল হাজম শহরের নিয়ন্ত্রণ হুতিদের হাতে যাওয়ার ফলে তেল সমৃদ্ধ মারিব অঞ্চল নিয়ে বড় ধরনের ঝুঁকি রয়েছে। ১ মার্চ কমপক্ষে ২১ হাজার বাস্তুচ্যুত পরিবার মারিব পৌঁছেছে।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here