ভারতের মণিপুরের পরিবেশকর্মী লিসিপ্রিয়া কাঙ্গুজাম। তার বয়স মাত্র আট বছর। তাকে বলা হয় ভারতের গ্রেটা থুনবার্গ।

আজ বিশ্ব নারী দিবস। এ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী টুইটারে ‘শিইনস্পায়ারসমি’ নামে এক ক্যাম্পেন শুরু করেন। যে মেয়েরা অন্যদের কাছে প্রেরণাস্বরূপ, তাদের নাম টুইটারে উল্লেখ করা হয়েছিল। সেখানে ছিল লিসিপ্রিয়ার নামও। তাই সে জানিয়েছে, তার নাম উল্লেখ না করলেই খুশি হবে।

লিসিপ্রিয়া বলেছে, ‘ডিয়ার মোদিজি, অনুপ্রেরণাদায়ক মেয়ে হিসেবে আমার নাম করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ জানাই। কিন্তু অনেক ভেবেচিন্তে আমি স্থির করলাম, আপনার দেওয়া সম্মান গ্রহণ করব না।’
গত শুক্রবার সরকারের পক্ষ থেকে পোস্ট করা হয়, ২০১৯ সালে মেয়েটি ড. এপিজে আবদুল কালাম চিলড্রেন পিস প্রাইজ পেয়েছিল। সে কি অন্যদের কাছে প্রেরণাস্বরূপ নয়? আপনারা কি তার মতো আর কাউকে চেনেন? চিনলে আমাদের তার নাম জানান।

লিসিপ্রিয়া মিডিয়াকে বলেছে, এমন ক্যাম্পেন চালানো নিশ্চয় ভালো। কিন্তু দেশে যেভাবে নারী ও শিশুদের ওপরে অত্যাচার হচ্ছে, তাতে মনে হয় না এই ক্যাম্পেনে কোনো লাভ হবে। এটা অনেকটা মুখে ফেয়ারনেস ক্রিম লাগানোর মতো। একবার মুখ ধুলেই আর ক্রিমের অস্তিত্ব থাকে না।
আট বছরের এই পরিবেশকর্মীর দাবি, এমন ক্যাম্পেন চালানোর বদলে সরকার তার দাবিগুলো মন দিয়ে শুনুক। তার বক্তব্য, আমাদের নেতারা পরিবেশ দূষণের বিপদকে গুরুত্ব দিতে রাজি নন। এটাই সবচেয়ে দুঃখের কথা।
২০১৮ সালের ৪ জুলাই মঙ্গোলিয়ায় জাতিসংঘের এক সভায় প্রথমবার ভাষণ দেয় লিসিপ্রিয়া। সারা বিশ্বের নেতারা যাতে পরিবেশ দূষণ রোধে সচেষ্ট হন, সেজন্য সে ‘চাইল্ড মুভমেন্ট’ অর্থাৎ শিশুদের নিয়ে আন্দোলনের ডাক দেয়। গত বছরের জুলাইতে টানা এক সপ্তাহ সে দিল্লিতে সংসদ ভবনের সামনে বিক্ষোভ দেখায়। সূত্র : দ্য ওয়াল।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here