হাবীব আনওয়ার|যমযম২৪


তরণদের অতিমাত্রায় আবেগি হলে চলবে না, বিবেগ দিয়ে কাজ করতে হবে। প্রতিটি বিষয়ে পূর্ণ জ্ঞান আহরণ না করে স্বাধীনভাবে কলম ধরা উচিত নয়। লেখা-লেখির ময়দানে আবেগ চলে না। খুব চৌকান্য হয়ে কলম চালাতে হবে। আমি কার বিরুদ্ধে কলম ধরছি এবং কী বিষয়ে কলম ধরছি এবিষয়টি সবসময় মাথায় রাখতে হবে।

গতকাল ১৫ ই নভেম্বর বৃহস্পতিবার হাটহাজারী নুর মসজিদের দক্ষিণ বিল্ডিং আল হাবীব ম্যানসনের ২য় তলায় “বাংলা বাড়ি” মিলনায়তনে কলম ও কণ্ঠে উজ্জীবিত হওয়ার দৃঢ় প্রত্যয়ে ‘নবীন লেখক আড্ডা’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির আলোচনায় বিশিষ্ট কলামিস্ট, নারীবাদী লেখক ও মেখল হামিয়ুচ্চুন্নাহ মাদরাসার সিনিয়র শিক্ষক মাওলানা জাকারিয়া নোমান ফয়জী এসব কথা বলেন।

বাদ মাগরিব হাবীব আনওয়ারের সঞ্চলনায় ও আজিম উদ্দিনের কুরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন,বাংলা বাড়ির পরিচালক মুহা. ইশতিয়াক সিদ্দিকী, প্রবচন সম্পাদক কাজী হামদুল্লাহ, তাকবির নিউজের সম্পাদক হাফিজ মুহাম্মাদ, তরুণ লেখক আব্দুল্লাহ আল-মুনীর, ওয়ালী উল্লাহ নোমানী, জুনাইদ আহমাদ,ইব্রাহিম ফুয়াদ প্রমূখ৷

মাওলানা জাকারিয়া নোমান ফয়জী আরো বলেন, বর্তমান মিডিয়া আগ্রাসন খুবই ভয়াবহ রুপ নিয়েছে। লেখা-লেখি ও মিথ্যা খবর প্রচারের মাধ্যমে ইসলামকে সন্ত্রাসী ধর্ম হিসাবে উপস্থাপন করার চেষ্টা চলছে। তাই এ আগ্রাসন মোকাবেলা করতে মুসলিম তরুণদের সংশ্লিষ্ট বিষয়ে যোগ্যতা অর্জনের বিকল্প নেই।
ফেসবুকের গুজুবে কান না দিয়ে তথ্য যাচাই করার প্রতিও গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

এছাড়াও বক্তাগণ পত্র-পত্রিকায় লেখালেখি, ইসলামী মিডিয়ার গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা এবং নবীন লেখকদের বিভিন্ন জিজ্ঞাসার উত্তর প্রধান করেন।

অনুষ্ঠানে সবার সিদ্ধান্ত মতে আগামী ৩০ নভেম্বর শুক্রবার আগামী আড্ডার পরবর্তী তারিখ ঠিক করা হয়।

 

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here