আগামী মে থেকে জুন মাস পর্যন্ত দেশে সাড়ে চার কোটি মানুষের জন্য করোনাভাইরাসের টিকা আসছে। জানুয়ারির শেষে বা ফেব্রুয়ারির প্রথমে দেড় কোটি মানুষের টিকা আসবে। পরে আরও টিকা আসবে।

সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর এ তথ্য জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিপরিষদের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

সাংবাদিকদের মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, সাড়ে চার কোটি মানুষের প্রত্যেককে দুই ডোজ করে হিসেবে ৯ কোটি ভ্যাকসিন আসবে, যা দিয়ে দেশের জনগোষ্ঠীর ২০ শতাংশের ভ্যাকসিনের চাহিদা মিটবে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, আপাতত অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিনের কথাই চিন্তা করছে। যদি অন্য কেউ আসে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) অনুমোদনসহ তা হলে সরকার কাউকেই মানা করবে না। কিন্তু তাকে ডব্লিউএইচওর প্রটোকল মানতে হবে এবং আমাদের দেশে যে টেকনিক্যাল কমিটি তারা যদি অনুমোদন করে তা হলে কোনো সমস্যা নেই।

তিনি বলেন, টিকা দেয়ার জন্য প্রশিক্ষণ দেয়া শুরু হয়েছে। ইপিআইর দেয়ার চেইনকে এখানে ব্যাপকভাবে কাজে লাগানো হবে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব আরও বলেন, বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাস্ক পরার ওপর আবারও গুরুত্বারোপ করেছেন। তিনি ‘নো মাস্ক নো সার্ভিস’ নীতি বাস্তবায়নের নির্দেশ দিয়েছেন। এ ছাড়া সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বিষয়েও আরও কঠোর ব্যবস্থা নিতে বলেছেন।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here