বিশ্ব নন্দিত মুরুব্বি, হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা আমির সদ্যপ্রয়াত শাইখুল ইসলাম আল্লামা আহমদ শফী রহ. -এর ইনতিকালের পর সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি চিহ্নিত মহল নতুন করে নানা উস্কানীমূলক পোস্ট ও মানহানীকর মন্তব্যের প্রচারণা চালিয়ে আসছে। প্রায় প্রতিনিয়ত শীর্ষ আলেমদের কটূক্তি করে আসছে তারা। আলেমদের কটূক্তি করা ব্যাঙ্গাত্মক পোস্টের একাধিক স্ক্রিনশট ইতোমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। এ চিহ্নিত মহলটির কটূক্তির ফলে আলেম সমাজসহ ধর্মপ্রাণ মুসলিমদের মাঝে চরম ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। হাটহাজারী মাদ্রাসার শীর্ষ আলেমগণ তাদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

হাটহাজারী উপজেলার ছাত্রলীগ কর্মী রেজাউল হাসান দীর্ঘদিন যাবত অনলাইনে আল্লামা আহমদ শফী ও জুনাইদ বাবুনগরীকে নিয়ে কটূক্তি করে আসছে। তার পিতা আব্দুল মান্নান। সে হাটহাজারী ফতেপুর, মদনহাট, চ.বি. ১নং গেইট রেলগেইট সংলগ্ন এলাকায় বাস করে।

ছাত্রলীগ কর্মী রেজাউল হাসান 

এছাড়াও এ ছাত্রলীগ কর্মীর বিরুদ্ধে সমাজে শৃঙ্খলা ভঙ্গ করা, নানা সময়ে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে উস্কানী দেয়া, নিরীহ মানুষকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করাসহ নানা অভিযোগ রয়েছে। ক্ষমতার ব্যবহার করে এসব অপকর্ম করে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করেন হাটহাজারীর একাধিক ব্যক্তিবর্গ।

চট্টগ্রাম শহরে অবস্থিত জামেয়া আহমদিয়ায় তাকমিল পড়া মুহাম্মদ নেসার উদ্দিনও বাদ যায়নি এমন নেক্কারজনক কাজ থেকে। ফেসবুকে অত্যন্ত ঘৃণ্যভাবে আল্লামা শফীকে কটূক্তি করে মন্তব্য করে পোস্ট করে সে। সোশ্যাল মিডিয়া ঘৃণা ছড়ানোর ফলে আলেম সমাজে চরম অসন্তোষ ও চাপা ক্ষোভ তৈরি হয়। এভাবে চলতে থাকলে যেকোনো সময় সহিংস আন্দোলন সৃষ্টি হতে পারে মনে করেন অনেকে।

নেছার উদ্দীন

হাটহাজারী মাদ্রাসার সিনিয়র শিক্ষক ও নবগঠিত মাদ্রাসা পরিচালনা বোর্ড ‘মজলিসে এদারিয়া’র সিনিয়র সদস্য আল্লামা ইয়াহইয়া সাহেব কওমি ভিশনকে জানান, ‘সোশ্যাল মিডিয়ায় আমাদের শাইখুল ইসলামকে কটূক্তি করা হচ্ছে জেনে আমি অত্যন্ত মর্মাহত হয়েছি। এটি কখনও কাম্য নয়। আমাদের শায়খ সবার রাহবার ছিলেন। সকলের মুরুব্বি ছিলেন। তিনি এখন আমাদের মাঝে নেই। এমন অবস্থায়ও তাকে নিয়ে যদি কেউ ব্যঙ্গ করে বা কটূক্তিমূলক কথা বলে তা আমরা বরদাশ করব না। এ ধরনের কাজ যারা করেছে আমরা উলামায়ে কেরামকে সাথে নিয়ে প্রশাসনের সহায়তায় তাদের বিরুদ্ধে যেকোনো ব্যবস্থা গ্রহণে আমরা বাধ্য থাকব।

তিনি আরো বলেন, আমরা চাই সমাজে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় থাকুক। শান্তি নষ্ট হয় এমন কাজ করা থেকে সবাই বিরত থাকবেন। আমাদের শায়খ আমাদেরকে এতিম করে চলে গেছেন। আপনারা সবাই তার জন্য দোয়া করবেন। মাদ্রাসার জন্য দোয়া করবেন।

হাটহাজারীতে আল্লামা শফীকে কটূক্তি করায় বেশ নড়েচড়ে বসেছে স্থানীয় শীর্ষ উলামায়ে কেরামগণ। বিশেষ সূত্রে জানা যায় তারা ইতোমধ্যে কটূক্তিকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করছেন। আল্লামা শফীসহ আলেম উলামাদের কটূক্তিকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের সহায়তা কামনা করেন তারা।

সূত্র – কওমি ভিশন

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here