কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলা থেকে খালেদা আক্তার (২২) নামে এক গৃহবধূ ও তার শিশুপুত্র আবু সাইদের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। উপজেলার ভাগলপুর গ্রামের ইসমাইল হোসেনের বাড়ির একটি কক্ষ থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়।

শিশুপুত্রকে বিষ খাইয়ে হত্যার পর মা বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা করছে ‍পুলিশ। মঙ্গলবার দাউদকান্দি থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ দুইটি কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। খালেদা আক্তার কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার মিরাখোলা গ্রামের আবদুল বারেকের মেয়ে।

খালেদার মা ফিরোজা বেগম জানান, খালেদা আক্তার দাউদকান্দির শহীদনগর সোনালি আঁশ ইন্ডাস্ট্রিজে শ্রমিক হিসেবে কাজ করত। ওই কারখানার কর্মী চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার বাইছাড়া গ্রামের আবু বকর ছিদ্দিকের সঙ্গে খালেদার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। দেড় বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। সন্তান জন্মের পর কাজ ছেড়ে দেয় খালেদা ও ভাড়া বাসায় ওঠে। এদিকে স্বামী আবু বকরের সাথে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দাম্পত্য কলহ সৃষ্টি হয়।

খালেদার প্রতিবেশীরা জানান, সকালে খালেদার ঘরের দরজা বন্ধ দেখে পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। পুলিশ এসে কক্ষের দরজা ভেঙে মা ও শিশুটির লাশ উদ্ধার করেছে।

দাউদকান্দি থানার ওসি আলমগীর হোসেন বলেন, দরজা ভেঙ্গে মা ও শিশু সন্তানের লাশ উদ্ধার করেছি। ধারণা করা হচ্ছে, শিশু সন্তানকে বিষপান করানোর পর মা বিষপান করেন।

ইত্তেফাক/ইউবি

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here