পিরিয়ড কালে যে সব নারী স্বামীর জন্য রান্না করেন, তারা পরজন্মে কুকুর হয়ে জন্মাবেন। এমন মন্তব্য করলেন ভারতের এক ধর্মগুরু।

দেশটির গুজরাটের ভুজের স্বামীনারায়ণ মন্দিরের স্বামীনারায়ণ গোষ্ঠীর ‘নর-নারায়ণ দেবগড়ী’ স্বামী কৃষ্ণরূপ দাসজীর আরও দাবি, ধর্মগ্রন্থেই রয়েছে, পিরিয়ড কালে স্ত্রীর রান্না খাবেন যে স্বামী, তিনি পরজন্মে ষাঁড় হবেন।

এক ভিডিওতে গুজরাটিতে এসব কথা দেখা গেছে ভারতীয় এই ধর্মগুরুকে। ইতিমধ্যে ওই ভিডিও দেশটির সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

ভিডিওতে তিনি আরও বলেছেন, আমার মতামত আপনাদের পছন্দ না হলে আমার কিছু এসে যায় না। এ সব আমাদের শাস্ত্রেই লেখা রয়েছে।

কৃষ্ণরূপ দাসজী বলেন, নারীরা বোঝেন না, ঋতুস্রাব চলার সময়টা তপস্যা করার মতো। এ-ও শাস্ত্রে লেখা। আমারও এ সব বলতে ভাল লাগছে না। কিন্তু আমায় সতর্ক করতেই হবে। পুরুষদের উচিত রান্না শেখা, এতে আপনাদের ভাল হবে।

তবে তিনি এসব কথা কবে বলেছেন তা স্পষ্ট নয়।

উল্লেখ্য, এই ধর্মগুরু যে মন্দিরের সঙ্গে যুক্ত, তারা ভুজে একটি কলেজ চালায়। কিছু দিন আগে সেই কলেজেরই অধ্যক্ষ এবং মহিলাকর্মীরা ৬০ জন মেয়েকে জোর করে অন্তর্বাস খুলে তাদের পিরিয়ড চলছে কিনা তা প্রমাণ করতে।

জানা যায়, ওই কলেজের হোস্টেলের ‘নিয়ম’ রয়েছে, পিরিয়ড চললে সেই মেয়েরা সবার সঙ্গে বসে খেতে পারবে না। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here