দখলদার ইসরাইলের সঙ্গে স্বাক্ষরিত গ্যাস চুক্তি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে। গতকাল (শনিবার) রাজধানী আম্মানে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভে হাজার হাজার মানুষ অংশ নিয়েছে। বিক্ষোভকারীরা এ সময় ইসরাইলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান দেন।

তারা বলেন, শত্রুর সঙ্গে গ্যাস চুক্তির অর্থ হচ্ছে দখলদারিত্বকে মেনে নেয়া। এর আগে গত সপ্তাহে সংসদ ভবনের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করে চুক্তি বিরোধী জনতা। জর্দানের সংসদ স্পিকার আতেফ তারাওনেহ বলেছেন, গ্যাস ক্রয় চুক্তি বাতিল সংক্রান্ত বিলটির বিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে হবে। এর আগে জর্দানের ৫৮ জন সংসদ সদস্য এই প্রথম বার ইসরাইলের সঙ্গে গ্যাস চুক্তি বাতিলের আবেদন সংক্রান্ত এক বিল পেশ করেছে।

জর্দানের জাতীয় বিদ্যুৎ কোম্পানি ২০১৬ সালে ইসরাইল থেকে গ্যাস আমদানি সংক্রান্ত একটি চুক্তিতে সই করেছে। এই চুক্তি অনুযায়ী ১৫ বছরে ইসরাইল থেকে জর্দানের প্রায় সাড়ে চার হাজার কোটি ঘনমিটার গ্যাস আমদানি করার কথা ছিল।

চুক্তি সইয়ের সময়ই জর্দানের জনগণ এর বিরোধিতা করেছিল, সংসদেও প্রতিবাদ হয়েছিল। তবে সম্প্রতি ইসরাইলের সঙ্গে জর্দানের সম্পর্কে টানাপোড়েন তৈরি হয়েছে।

সম্প্রতি জর্দানের সামরিক বাহিনী ইহুদিবাদী ইসরাইলকে শত্রু কল্পনা করে সামরিক মহড়া চালিয়েছে। মহড়ায় জর্দানের রাজা দ্বিতীয় আব্দুল্লাহ নিজে উপস্থিত ছিলেন। দখলদার ইসরাইলের সঙ্গে সম্ভাব্য যুদ্ধ মোকাবেলার কৌশল অনুশীলন করা হয় এ মহড়ায়। সূত্র : পার্সটুডে

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here