ইরাকে গত শুক্রবার এক মার্কিন ঠিকাদারকে হত্যার প্রতিশোধ নিতে দেশটির আধাসামরিক বাহিনী হাশদ আশ-শাবির অন্তত পাঁচটি ঘাঁটিতে বিমান হামলা চালিয়েছেন মার্কিন সেনারা।

এতে অন্তত ২৫ জন নিহত ও অর্ধশতাধিক আহত হয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রের দাবি, এ ঘাঁটিগুলো ইরান সমর্থিত সশস্ত্র সংগঠন হিসবুল্লাহর ঘনিষ্ঠ।

ইরাকের প্রেসিডেন্ট বারহাম সালিহ ও প্রধানমন্ত্রী আদেল আব্দুল-মাহদি সে দেশের আধাসামরিক বাহিনীর ঘাঁটিতে মার্কিন হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। তারা বলেছেন, এ হামলার মাধ্যমে ইরাকের সার্বভৌমত্বের প্রতি আঘাত হেনেছে আমেরিকা।

২০১৪ সালে হাশদ আশ-শাবি গঠিত হয়। ২০১৬ সালে ইরাকের পার্লামেন্টে আইন পাস করে এ বাহিনীকে ইরাকের সশস্ত্র বাহিনীর অন্তর্ভুক্ত করা হয়।

মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় পেন্টাগন এক বিবৃতিতে বলেছে, তারা হাশদ আশ-শাবির সঙ্গে সংশ্লিস্ট হিজবুল্লাহর কয়েকটি অবস্থানে বিমান হামলা চালিয়েছে।

এ হামলার জের ধরে ইরাকের সব মার্কিন ঘাঁটিকে সর্বোচ্চ প্রস্তুত অবস্থায় রাখা হয়েছে। হাশদ আশ-শাবির শীর্ষস্থানীয় নেতা জাওয়াদ কাজেম রাবিয়াভি জানিয়েছেন, পশ্চিম ইরাকের আল আনবার প্রদেশের আল-কায়েম শহরে হাশদ আশ-শাবি’র কয়েকটি ঘাঁটিতে হামলা চালিয়েছে আমেরিকা। এসব হামলায় হাশদ আশ-শাবির ২৫ সদস্য নিহত এবং অপর ৫১ জন আহত হয়েছেন।

জঙ্গিগোষ্ঠী আইএস দমনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করায় হাশদ আশ-শাবি ইরাকে বেশ জনপ্রিয় একটি বাহিনী।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here