পবিত্র কুরআনুল কারিমে অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে ওই স্থানে কুরআন তেলাওয়াত অনুষ্ঠানের পর এবার অমুসলিমদের মাঝে কুরআনের ১০ হাজার কপি বিতরণ করার উদ্যোগ করেছেন নরওয়ের মুসলমানরা।

নরওয়ের স্থানীয় ভাষায় অনূদিত কুরআনের এসব কপি অমুসলিমদের মাঝে বিতরণ করা হবে। কুরআনের সৌন্দর্য তুলে ধরার জন্য মুসলিমদের এ উদ্যোগ।

নরওয়ের রাজধানী অসলোসহ বিভিন্ন শহরে বিতরণ করা হবে স্থানীয় ভাষায় অনূদিত কুরআনের কপিগুলো। ৩টি মুসলিম সংস্থা নরওয়েজিয়ান অ্যাসোসিয়েশন অফ মুসলিম আর্টস অ্যান্ড কালচার-এর উদ্যোগে মিনহাজুল কুরআন মসজিদ এবং ইসলাম সাহিত্য সংঘের সহযোগিতায় তা বিতরণ করা হবে।

মিনহাজুল কুরআন মসজিদ বোর্ডের সদস্য হামজা আনসারি বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি, বহু মানুষ কুরআন ও মুসলিম ধর্ম বিশ্বাসের ব্যাপারে আগ্রহী। কুরআন বিতরণের এই প্রকল্প মানুষের ভুল ধারণা ভাঙতে সাহায্য করবে। কেননা কুরআনে শিক্ষা হল, মানুষকে ভালোবাসো এবং জ্ঞানের কথা বলে।’

সম্প্রতি নরওয়ের ইসলাম বিদ্বেষী দল ‘দ্য অর্গানাইজেশন স্টপ ইসলামাইজেশন অব নরওয়ে’ (এসআইএএন)-এর প্রধান অ্যানা ব্রাটেন গত জুন মাসে নরওয়ের রাজধানী অসলোর এক সভায় প্রকাশ্য সমাবেশে পবিত্র কুরআনুল কারিম ছুড়ে ফেলে দেন।

সে ধারাবাহিকতায় কয়েক দিন আগে এক খ্রিস্টান পবিত্র কুরআনুল কারিমের একটি কপি জ্বালিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। ওই সময় ওমর ইলিয়াস নামে এক মুসলিম যুবক প্রাণপণ চেষ্টা করে পবিত্র কুরআনের এ কপিটির হেফাজত করেন।

নরওয়ের যে স্থানটিতে পবিত্র কুরআন জ্বালিয়ে দেয়ার চেষ্টা করা হয়েছিল সে স্থানে অবিরাম কুরআন তেলাওয়াতের অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

ভিডিওতে দেখা যায়, অনেক মানুষ দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে পবিত্র কুরআনের সুরা হামিম আস-সাজদার আয়াতগুলো সাউন্ড বক্সের উচ্চ আওয়াজের তেলাওয়াত গভীর মনোযোগ দিয়ে শুনছেন।

কুরআন অবমাননার ঘটনায় সম্প্রীতি ও ভালোবাসার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন দেশটির মুসলিমরা। মুসলিমরা ফুল বিতরণ ও কুরআন তিলাওয়াত কর্মসূচির আয়োজন করেন। নরডিক মুসলিমদের এই উদ্যোগকে অনন্য দৃষ্টান্ত উল্লেখ করে স্বাগত জানিয়েছে দেশটির সাধারণ মানুষ।

নরওয়ের অমুসলিমদের মাঝে কুরআন সম্পর্কে জানাতেই এবার স্থানীয় ভাষায় অনূদিত ১০ হাজার কুরআন বিতরণ করা হবে। যা থেকে অমুসলিমরা জানতে পারবে কুরআনের সুন্দর ও শ্বাশত বিধান।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here