পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ভারতীয় লোকসভায় পাস হওয়া নাগরিকত্ব বিলের তীব্র সমালোচনা করে বলেছেন, বিলটি সকল আন্তর্জাতিক অধিকার আইনের রীতিনীতি ও পাকিস্তানের সাথে করা দ্বিপক্ষীয় চুক্তির পরিপন্থী।

মঙ্গলবার এক টুইটে প্রধানমন্ত্রী ইমরান বলেন, এটি ফ্যাসিবাদী মোদি সরকারের সম্প্রসারণবাদী নীতির আরএসএস হিন্দু রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনার অংশবিশেষ।

সোমবার ভারতীয় আইনসভার নিম্নকক্ষে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হওয়ার পর ইমরান খান এই মন্তব্য করলেন।

তবে ভারতের বিরোধী দলগুলো এই বিলের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বলেছে, এতে করে ভারতে প্রথমবারের মতো জাতীয়তা নির্ধারণের ভিত্তি হবে ধর্ম। বিলটি ২০১৬ সালে প্রথমবারের মতো উত্থাপন করা হয়েছিল। তখনো সব দলের প্রতিবাদের মুখে তা পাস করানো সম্ভব হয়নি। এই বিলের মাধ্যমে ২০১৫ সালের আগে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে আসা অমুসলিমদের ভারতীয় নাগরিকত্ব প্রদান করা হবে।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্র দফতরও এই বিলের তীব্র সমালোচনা করে বলেছে, এটি চরমপন্থী হিন্দুত্ববাদী আদর্শের বিষাক্ত মিশ্রণে চালিত।

পররাষ্ট্র দফতরে বিবৃতিতে বলা হয়, পাকিস্তান এই উদ্যোগের নিন্দা করে। এতে বলা হয়, এটি সার্বজনীন মানবাধিকার নীতির পুরোপুরি লঙ্ঘন।

সোমবার রাতে পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষে ৩১১-৮ ভোটে সিএবি নামে পরিচিত বিলটি পাস হয় বলে এএফপি জানিয়েছে।

বিলটি এখন পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষে আছে। এখানে ক্ষমতাসীন বিজেপির সংখ্যাগরিষ্ঠতা নেই।  বিলটি আইনে পরিণত হওয়ার আগে নিম্নকক্ষের পর এই উচ্চকক্ষেও অনুমোদিত হতে হবে।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here