তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান বলেছেন, পিটার হ্যান্ডকাকে নোবেল পুরস্কার দেয়ার মাধ্যমে ইসলাম ও মানবতার শত্রুদের উসকে দেয়া হয়েছে।

এরদোগান বলেন, হাজার হাজার মুসলমানের রক্ত ঝরানো ও প্রাণহানি ঘটিয়েছেন এমন খুনির পক্ষে সাফাই গাওয়া এবং প্রশংসাকারীকে এই পুরস্কার দেয়া লজ্জা ও অপমানের।

চলতি বছরে সাহিত্যে নোবেল দেয়া হয়েছে অস্ট্রেলীয় লেখক পিটার হ্যান্ডকাকে। ১৯৯৫ সালে বসনিয়ায় গণহত্যাকে অস্বীকার করার অভিযোগ রয়েছে এই লেখকের বিরুদ্ধে।

ওই গণহত্যার ঘটনায় দায়ী সাবেক সার্বীয় নেতা স্লোবোদান মিলোসেভিসের একজন বড় গুণকীর্তনকারী হ্যান্ডকা।

অথচ ২০০৬ সালে মৃত্যুর আগে দ্য হেগ শহরে আন্তর্জাতিক আদালতে গণহত্যা ও যুদ্ধাপরাধের অভিযোগের মুখোমুখী হতে হয়েছিল ওই সার্বীয় নেতাকে।

১৯৯৮-১৯৯৯ সালের কসোভো যুদ্ধের সময় হ্যান্ডকা লিখেছেন, যদি আপনারা সার্বদের সমর্থন করেন, তবে রুখে দাঁড়ান।

সারাজেভোতে বসনীয় মুসলমানরা নিজেদেরই হত্যা করেছেন বলে তিনি দাবি করেন। অস্ট্রেলীয় এই লেখক বলেন, সেবরেনিৎসায় সার্বরা কোনো গণহত্যা চালিয়েছে, তা কোনোদিন তিনি বিশ্বাস করেন না।

কারাগারে মিলোসেভিসকে দেখতে গিয়েছিলেন এবং তার পক্ষে সাক্ষ্য দেয়ারও চেষ্টা করেছিলেন পিটার হ্যান্ডকা। নোবেলজয়ী হিসেবে তাকে ৯০ লাখ সুইডিশ ক্রোনার, একটি মেডেল ও একটি ডিপলোমা দেয়া হবে।

এই পুরস্কার নিয়ে কথা বলতে লোকজনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেন, যারা তুরস্ককে গণতন্ত্র ও আইন নিয়ে জ্ঞান দেয়ার চেষ্টা করেন, তারাই একনায়ক ও লাখ লাখ মানুষকে হত্যায় দায়ী খুনিদের জন্য লাল গালিচা সংবর্ধনার আয়োজন করেন।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here